৬ পয়সা প্রতি মিনিট চার্জের অর্থ কী ? কি কারনে জিও প্রতি কলে কাটবে টাকা

UBG NEWS ডেস্ক : ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রিলায়েন্স জিও পরিষেবা শুরু হবার সময়ে তারা দাবি করেছিল তাদের নেটওয়ার্কে কল সর্বদাই ফ্রি থাকবে। তাদের আগে ২জি বা ৩জি পরিষেবার ইতিহাস ছিল না, শুরুই করেছিল ৪জি VOLTE নেটওয়ার্ক দিয়ে। এর পর তারা ব্যাপক কম খরচে মোবাইল ডেটা দিতে শুরু করে, যার জেরে এয়ারটেল এবং ভোডাফোন রেট কম করতে বাধ্য হয়।

বুধবার রিলায়েন্স জিওঘোষণা করেছে তাদের ইন্টারকানেক্ট ইউসেজ চার্জ (আইইউসি) র জন্য এখন থেকে মিনিটে ৬ পয়সা করে খরচ পড়বে, এয়ারটেল বা ভোডাফোন আইডিয়ার নেটওয়ার্কে কল আর ফ্রি থাকবে না। রিলায়েন্স জিও বেশি কিছু টপ আপ ভাউচারের কথা ঘোষণা করেছে, যার ফলে গ্রাহকরা আউটগোয়িং কলের কিছু নির্দিষ্ট মিনিট পাবেন।

আইইউসি টপ আপ ভাউচারে রিলায়েন্স জিও কী ঘোষণা করেছে?

ট্রাই আইইউসি কলের হার ৬ পয়সা প্রতি মিনিট নির্ধারিত করে দিয়েছে, যদিও আগে তা ছিল ১৪ পয়সা প্রতি মিনিট। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ট্রাই এ খরচ শূন্য নামিয়ে আনতে চায়।

ট্রাই এই আইইউসি পদ্ধতি বন্ধ করতে চায় এই ভেবে য়ে সমস্ত নেটওয়ার্কই VOLTE তে চলে যাবে। জিও সম্পূর্ণ VOLTE নেটওয়ার্ক হলেও ভোডাফোন এবং এয়ারটেল এখনও ২জি ও ৩জি নেটওয়ার্কে পরিষেবা দিয়ে চলেছে।

জিওর দাবি এয়ারটেল এবং ভোডাফোনের গ্রাহকরা এখন জিও গ্রাহকদের মিসড কল গিয়ে থাকেন, বিনামূল্যে পরিষেবা দেওয়ার সুবাদে জিও নেটওয়ার্কের গ্রাহক তাঁদের ফোন করেন। সংস্থার দাবি, দিনে গড়ে জিও নেটওয়ার্কে ২৫ থেকে ৩০ কোটি মিসড কল আসে। জিওর দাবি তাদের গ্রাহকরা মিসড কলের সুবাদে প্রতিদিন জিও গ্রাহকরা ৬৫ থেক ৭৫ কোটি মিনিট আউটগোয়িং কল করেন, এবং এর ফলে গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ ছাড়া তাদের সামনে আর কোনও পথ খোলা নেই।

৬ পয়সা প্রতি মিনিট চার্জের অর্থ কী?

জিও বলেছে, তাদের প্রতি মিনিটে ৬ পয়সার চার্জ কেবলমাত্র ভোডাফোন-আইডিয়া এবং এয়ারটেল নেটওয়ার্কের জন্যই লাগু হবে। জিও টু জিও কল, বা ইনকামিং কল এমনকি ল্যান্ডলাইন কলও ফ্রি থাকবে। ফ্রি থাকবে হোয়াটসঅ্যাপ বা অন্যান্য ওটিটি প্ল্যাটফর্মের কলও।

জিও ভাউচার কীরকম হবে?

এই টপ আপ ভাউচারের দাম হবে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ১০০ টাকা পর্যন্ত। ১০ টাকার ভাউচারে নন-জিও নাম্বারে ১২৪ মিনিট কল করা যাবে, সঙ্গে পাওয়া যাবে ১ জিবি অতিরিক্ত ডেটা। ২০ টাকার ভাউচারে নন-জিও নাম্বারে ২৪৯ মিনিট কলের সঙ্গে পাওয়া যাবে ২ জিবি অতিরিক্ত ডেটা। ৫০ টাকার ভাউচারে নন-জিও নাম্বারে ৬৫৬ মিনিট কলের সঙ্গে পাওয়া যাবে ৫ জিবি অতিরিক্ত ডেটা। সবচেয়ে দামি প্ল্যান ১০০ টাকার ভাউচারে ১৩৬২ মিনিট নন-জিও নাম্বারে ফ্রি কলের সুযোগের সঙ্গে থাকেব ১০ জিবি অতিরিক্ত ডেটা। জিও জানিয়েছে পোস্টপেইড গ্রাহকরা নেট কানেকশন ছাড়া ফোন করলে তাঁদের প্রতি মিনিটে ৬ পয়সা করে চার্জ ধার্য করা হবে, সঙ্গে অতিরিক্ত ডেটার সুবিধা দেওয়া হবে।

ভোডাফোন-এয়ারটেলের প্রতিক্রিয়া কী?

নাম না করে ভোডাফোন এক বিবৃতিতে বলেছে, “একটি টেলিকম পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা অন্য পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থায় কল করার জন্য যে চার্জ ধার্য করেছে, তা শুধু অযৌক্তিকভাবে তাড়াহুড়ো করে নেওয়া সিদ্ধান্তই নয়, একই সঙ্গে ইন্টারকানেক্টের বিষয়টি যে গ্রাহকের মূল্য নির্ধারণের বিষয় নয়, অপারেটরদের মধ্যেকার বোঝাপড়ার বিষয়, এই সত্যকে আড়াল করেছে।”

এয়ারটেলের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ট্রাই আইইউসির খরচ শূন্যে নামিয়ে আনার যে পরিকল্পনা করেছে তার একটি ভিত্তি হল VoLTE গ্রহণ করা হলে খরচ করবে এই অনুমান। এবং ছোট অপারেটরের সংখ্যা বাড়বে এমনটাও অনুমান করা হয়েছিল। এয়ারটেল বলছে, “দুটি অনুমানই বেঠিক প্রমাণিত হয়েছে এবং এখনও ভারতে ৪০০ মিলিয়ন ২জি গ্রাহক রয়েছেন যাঁরা প্রতি মাসে ৫০ টাকারও কম ব্যয় করছেন- এঁদের পক্ষে ৪জি ফোন কেনা সম্ভব নয়।”

এয়ারটেল বলেছে, “টেলিকম শিল্প গত তিন বছর ধরে গভীর অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে রয়েছে যার জেরে বেশ কিছু অপারেটর দেউলিয়া হয়ে পড়েছে এবং হাজার হাজার চাকরি চলে গিয়েছে। আইইউসি তৈরি হয়েছে কল প্রতি খরচের ভিত্তিতে। ভারতে যে বহুল পরিমাণ ২জি গ্রাহক রয়েছেন, তাতে কলপ্রতি ৬ পয়সা কল সম্পূর্ণ করার প্রকৃত খরচের থেকে অনেক কম।”