Ad
দক্ষিণ দিনাজপুর

সরকারি জমিতে, সরকারি ইট চুরি করে অবৈধভাবে দলীয় দপ্তর তৈরির অভিযোগ উঠলো শাসক দলের বিরুদ্ধে

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ, দক্ষিণ দিনাজপুর, ২৯ সেপ্টেম্বরঃ সরকারি খাস জমিতে, সরকারি ইট চুরি করে অবৈধভাবে দলীয় দপ্তর তৈরির অভিযোগ উঠলো শাসক দলের বিরুদ্ধে। তবে, তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। অন্যদিকে, এ বিষয়ে তদন্ত করে, আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট বিডিও।

দক্ষিণ দিনাজপুরের বংশীহারী থানার নূরপুর এলাকায় তৈরি হচ্ছে তৃণমূলের দলীয় দপ্তর। অভিযোগ, অবৈধভাবে সরকারি জমিতেই একেবারে পাকাপাকিভাবে তৈরি হচ্ছে শাসক দলের এই দলীয় দপ্তর। এখানেই শেষ নয়, নির্মাণ কাজে যে ইট ব্যবহার করা হচ্ছে, তা জেলা পরিষদের ইট ভাটার ইট বলেও অভিযোগ বিরোধীদের। বিরোধীদের অভিযোগ, জেলা পরিষদের ইট চুরি করে তৈরি করা হচ্ছে তৃণমূলের দলীয় দপ্তর।

Ad

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সিপিএম সম্পাদক নারায়ণ বিশ্বাস বলেন, দুর্নীতিতে সরকার এবং শাসক দল মিলে মিশে গিয়েছে। তৃণমূল এবং পশ্চিমবঙ্গ সরকার একাকার হয়ে গিয়ে যে লুটতরাজ চালাচ্ছে, এটি তারই একটি উদাহরণ।

অন্যদিকে, নুরপুরের যে তৃণমূল নেতার উদ্যোগে এই পার্টি অফিস তৈরি হচ্ছে, সেই তৃণমূল নেতা আজগর আলী অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। সরকারি ইট নিয়ে আসা হলেও, তা চুরি নয় বলেই দাবী করেছেন তিনি। তৃণমূল নেতা আজগর আলী জানান, জেলা পরিষদের ইটভাটায় বেশ কিছু পরিত্যক্ত ইট ছিল।

সেই জায়গা সমতল করার জন্য জেসিবি মেশিন ব্যবহার করার সময় ইঁট গুলো যাতে মাটি চাপা না পরে, সেজন্য তাদের দলের কর্মীরা ইট নিয়ে এসেছে বলে দাবী করেছেন তিনি।। তবে ইট নিয়ে সাফাই দিলেও, সরকারি জায়গায় দলীয় দপ্তর তৈরির বিষয়টি তিনি এড়িয়ে যান।

এই বিষয়ে বংশীহারীর বিডিও সুদেষ্ণা পাল বিষয়টি তার জানা ছিল না বলেই দাবী করেছেন। এই বিষয়ে তদন্ত করে দেখে, আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন