৩ মে ট্রেন-বিমান চালু হওয়ার সম্ভাবনা নেই

নয়াদিল্লি: করোনা সংক্রমণ রোখার জন্য ৩ মে ৪০ দিনের দেশ লকডাউনের মেয়াদ শেষ হবে। লকডাউন শেষ হওয়ার পরেও ভারতে বিমান ও ট্রেন পরিষেবা বন্ধ থাকতে পারে। দেশের করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করার পর ১৫ মে থেকে বিমান ও ট্রেন চলাচল করতে পারে বলেই জানানো হয়েছে। শনিবার এই নিয়ে এক দল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বৈঠক হয়।

একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সভাপতিত্বে তাঁর বাড়িতে একটি বৈঠক হয় যেখানে ১৫ মে থেকে বিমান ভ্রমণ শুরু হতে পারে বলে পরামর্শ দেওয়া হয়। বিমান পরিবহণমন্ত্রী হরদীপ পুরী সহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের উপরেই সমস্ত কিছু নির্ভর করছে। সেখানে উপস্থিত এক মন্ত্রী জানিয়েছেন, “বিমান চালনার ক্ষেত্রে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিমান পরিবহণমন্ত্রী জানিয়েছেন বিমান কোথায় অবতরণ করবে ভাড়া কি হবে তা নিয়ে পরিকল্পনা করা হয়েছে।” তবে এই কথা অস্বীকার করেছেন হরদীপ পুরী।

ইতিমধ্যে এয়ার ইন্ডিয়া ১ জুন থেকে আন্তর্জাতিক বিমান ৪ মে থেকে অন্তর্দেশীয় বিমান বুকিং পরিষেবা চালু করেছে। তবে বৈঠকে উপস্থিত এক মন্ত্রী জানিয়েছেন, “বিমান ও রেলযাত্রা কখন শুরু হবে সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট কোন তারিখ ছিল না।” তিনি আরও বলেন, “এইগুলি চালু হতে সম্ভবত আরও সময় লাগবে যা ৩ মে ছাড়িয়ে যেতে পারে।” অন্য এক মন্ত্রী জানিয়েছেন আটকে পড়া পরিজায়ী শ্রমিকদের জন্য হয়ত একটি নন-স্টপ ট্রেন চালু হতে পারে। উদাহরণ হিসাবে তিনি বলেন তিরুবনন্তপুরম থেকে ভুবনেশ্বর দূরত্ব পর্যন্ত একটি নন-স্টপ ট্রেন চলতে পারে।

তবে শনিবারের বৈঠকে উপস্থিত মন্ত্রীরা জানিয়েছেন কবে থেকে ট্রেন, বিমান পরিষেবা চালু হবে তা সম্পূর্ণটাই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সিদ্ধান্তের উপর। সেই সঙ্গে ভারতে করোনা সংক্রমণের হার ও প্রভাব খতিয়ে দেখার পরেই বিমান ও ট্রেন পরিষেবা চালু হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।