ফের নয়া রেকর্ড, ভারতে একদিনে সংক্রমিত ৭৮ হাজার ৭৬১!

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক: এই নিয়ে পর পর চার দিন, ৭৫ হাজারের উপরেই রইল দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। দৈনিক করোনা পরীক্ষা হচ্ছে ৯ লক্ষের বেশি। সংক্রমণ হারও দিন চারেক ধরে আট শতাংশেই আটকে রয়েছে।

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানাল, ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে সংক্রামিত ৭৮,৭৬১ জন। এক দিনে মৃত্যু হয়েছে ৯৪৮ জনের। এ দিনের পর ভারতে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৩৫ লক্ষ ছা়ড়িয়ে গেল। মোট মৃতের সংখ্যা তো আগেই ৬৩ হাজার ছাপিয়ে গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের চিন্তায় রেখেছে সংক্রমণের হারও।

 যদিও, কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য, দৈনিক আক্রান্ত এবং মৃত্যুর নিরিখে ভারতের তুলনা আমেরিকা, ব্রাজিলের মতো দেশের সঙ্গে করা হলেও প্রতি দশ লক্ষে সংক্রামিতের সংখ্যা এদের তুলনায় এই দেশে অনেক কম।

তাছাড়া, এ দেশে সুস্থতার হারও অনেক বেশি। এখনও পর্যন্ত ২৭ লক্ষেরও বেশি করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন। আইসিএমআর-ও এ দিন জানিয়েছে যে, ইতিমধ্যেই দেশে ৪ কোটির বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে।

 ফলে, সংক্রমণের সংখ্যা বাড়াতে অস্বাভাবিক কিছু দেখছে না কেন্দ্র। যদিও, তাদের উদ্বেগে রেখেছে কয়েকটি রাজ্যের করোনা-চিত্র। যা ক্রমেই লাগামছাড়া হয়ে উঠছে।

তালিকায় প্রথমেই নাম মহারাষ্ট্রের। এ দিন সেখানে ১৬ হাজারেরও বেশি মানুষ নতুন করে করোনা পজিটিভ হয়েছেন। অন্ধ্রপ্রদেশেও দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা দশ হাজারের বেশি। তামিলনাড়ু, উত্তরপ্রদেশে মতো রাজ্যেও ২৪ ঘণ্টায় পজিটিভ ৫ হাজারের বেশি।

কিছুটা স্বস্তি পাওয়ার পর ফের সংক্রমণ মাথাচাড়া দিতে শুরু করেছে কেরালায়। গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, ‘গণেশ চতুর্থীর সময়ে লোকজন স্বাস্থ্যবিধি না মানার জেরেই সংক্রমণ বাড়ছে।’ সামনেই ‘ওনাম’, রাজ্যবাসীকে বাড়িতে থেকেই উৎসব পালনের অনুরোধ করেছেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন।

এ দিকে, রাজনীতির আঙিনায় এ দিনও দাপট দেখিয়েছে করোনা। উত্তরাখণ্ড বিজেপির সভাপতি আক্রান্ত হওয়ার পর দলের রাজ্য কার্যালয় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

করোনা পজিটিভ উত্তরপ্রদেশের আরও এক মন্ত্রী। অন্যদিকে, স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করায় বিজেপি নেতা সাক্ষী মহারাজকে ১৪ দিনের কোয়ারান্টিনে পাঠিয়ে দিয়েছে ঝাড়খণ্ড প্রশাসন।

করোনা নেগেটিভ হওয়ার পর পোস্ট কোভিড কেয়ারের জন্য দিল্লির এইমসে ভর্তি হয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শনিবার এইমস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তিনি ভালো আছেন। খুব দ্রুতই তাঁকে ছেডে় দেওয়া হবে।