ত্রান বিলি কে কেন্দ্র করে তৃণমূল- বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র কোচবিহারের তুফানগঞ্জ

তুফানগঞ্জ – ত্রান বিলিকে কেন্দ্র করে শুক্রবার বিজেপি ও তৃণমূল দুই দলের সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো কোচবিহারের তুফানগঞ্জ শহর। একদলের কর্মী-সমর্থকরা অপর দলের কর্মী-সমর্থকদের উপর রীতিমত লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করে বলে অভিযোগ।

সংঘর্ষে উভয় দলের দশ জনেরও বেশি আহত হয়। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।

সংঘর্ষের কথা জেনে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়তে হল বিজেপির বিধায়াকা তথা দলের জেলা সভানেত্রী মালতী রাভাকেও। ওই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১০ জনের বেশি আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠি চার্জ করতে হয়েছে। দুপক্ষের বেশ কয়েকজনকে আটক হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

অভিযোগ, এদিন সকালে ত্রাণ বিলি করতে তুফানগঞ্জের হরিধাম এলাকায় যান বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তখন বিজেপির ওই কর্মসূচিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে ওই এলাকায় দুপক্ষের মধ্যে প্রথমে বচসা পরে হাতাহাতি পর্যন্ত হয় বলে জানা গিয়েছে।

এরপরে সাময়িক ভাবে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। ইতিমধ্যেই ওই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান তুফানগঞ্জের বিজেপি বিধায়ক মালতি রাভা। তিনি সেখানে যাওয়ার পর ফের নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়। তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা মালতি রাভাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। বাধা দিতে গেলে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের সাথে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের ব্যাপক সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে বিজেপির দুই কর্মী জখম হয়ে তুফানগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই কর্মী জখম হয়েছেন বলে তাঁদের নেতারা দাবি করেছেন।

ওই সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ বিশাল বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশকে লাঠি চার্জ করতেও দেখা যায়। ঘটনাস্থল থেকে দুপক্ষের বেশ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। এরমধ্যেই বিজেপির বিধায়িকা মালতি রাভার সাথে বচসা বেঁধে যায় বলেও জানা গিয়েছে। পরে সেখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও এখনও গোতা এলাকা থমথমে রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। নতুন করে যাতে কোন অশান্তির সৃষ্টি না হয়, এর জন্য ওই এলাকায় পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বিজেপির জেলা সভানেত্রী বিধায়ক মালতি রাভা বলেন, বিজেপির তরফ থেকে এদিন ত্রান বিলি হচ্ছিল। হঠাৎই তৃণমূলের লোকজন বিজেপি কর্মীদের ওপর আক্রমণ করে। পুলিশের সামনেই এ ঘটনা ঘটেছে অথচ পুলিশ ঠুঁটো জগন্নাথ। তৃণমূলের আক্রমণে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে তৃণমূলের তুফানগঞ্জ শহর ব্লক সভাপতি বলেন, লকডাউনের ফলে মানুষের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সেই সময় মানুষের পাশে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি ত্রান বিলির নামে এলাকায় অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। বিজেপির আক্রমণের তৃণমূলের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।