Ad
কোচবিহার

তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামীর ফেসবুক পোস্ট ঘিরে কোচবিহারের রাজনীতিতে চাঞ্চল্য

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

কোচবিহার, ১ নভেম্বরঃ  কোচবিহারের দক্ষিণপন্থী রাজনীতিতে মিহির গোস্বামী একটি নাম। দীর্ঘ রাজনৈতিক পথ পেরিয়ে এসে মিহিরবাবু হয়তো জীবনের মানেটা খোঁজার চেষ্টা করছেন। মিহির গোস্বামীর ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট দেখেই সেটি মনে হল।

তিনি লিখেছেন, তর্কের চেয়ে নীরবতা ভালো। প্রতিশোধ নেওয়ার চেয়ে রাস্তা বদলে ফেলা ভালো। আর স্বার্থপর মানুষের পাশে চলার চেয়ে একা চলা অনেক ভালো।

Ad

Related Articles

তাঁর এই বক্তব্যে তিনি যে তৃণমূলে ছেঁড়ে দেওয়া পদে আর ফিরছেন না, তার একটা ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। তবে তিনি দলবদল করবেন কিনা? করলেও বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। এদিকে তাঁকে ধরার চেষ্টা করেও পাওয়া যায় নি।

তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই তিনি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে ছিলেন। এরপর তোরসা দিয়ে অনেক জল প্রবাহিত হয়েছে। রাজ্যে পালাবদল ঘটেছে। রাজনৈতিক টানাপোড়েনে তার মতো ব্যক্তিত্ব রাজনৈতিক কূটনীতির পঙ্কে অবগাহনের মানসিকতা কোনোকালেই তার ছিল না। কিন্তু রাজনৈতিক জটিল আবর্তে তাকে তৃণমূলের সাংগঠনিক পথ থেকে সরে দাঁড়াতে হয়।

দলের সমস্ত সাংগঠনিক পথ থেকে সরে দাঁড়ানোর পর মিহির বাবু মুখ্যমন্ত্রী চাইলে বিধায়ক পদ থেকেও সরে দাঁড়াবেন বলে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেন। এরপর সাংবাদিক সম্মেলন করে পিকের আই প্যাক টিমের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মিহির বাবু। দুর্গা উৎসব শেষে বিজায়ার শুভেচ্ছা জানাতে প্রথমে তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় মিহির বাবুর বাড়িতে গিয়ে দেখা করেন।

রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয় মান ভাঙতেই তৃণমূল জেলা সভাপতির ওই বিজয়া শুভেচ্ছা। কিন্তু এতেও যে মিহির বাবুর মান ভাঙে নি, সেটা পরবর্তীতে মিহির বাবুর বক্তব্যে স্পষ্ট। এরপর বিজয়ার শুভেচ্ছা জানাতে খোদ বিজেপির কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক হাজির হাজির হন মিহির বাবুর বাড়িতে। আর এতেই মিহির বাবুর বিজেপিতে যোগদানের সম্ভাবনা নিয়ে জোড় জল্পনা শুরু হয় কোচবিহারের রাজনৈতিক মহলে।

এরপর আসরে নামতে দেখা যায় তৃণমূল কংগ্রেসের দুই মন্ত্রী এবং প্রবীণ নেতা রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও বিনয় কৃষ্ণ বর্মণকে। জেলার দুই মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ এবং বিনয় কৃষ্ণ বর্মন তার কোচবিহারের বাড়িতে সাক্ষাতের চেষ্টা করেন। কিন্তু ব্যর্থ হওয়ার পর মিহিরবাবুর সঙ্গে দেখা করার জন্য আলিপুরদুয়ারে ছুটে যান।

সেখানেও ব্যর্থ হন তারা, ততক্ষণে অসমের পথে পাড়ি দিয়েছেন মিহিরবাবু। এর পরেই মিহির গোস্বামী তার ফেসবুকের ওয়ালে এই ধরনের পোস্ট ভাবিয়ে তুলেছে রাজনৈতিক মহলে। তবে কি তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? উত্তর পেতে আরও দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হবে। কারণ বর্ষীয়ান এই নেতা পরিষ্কার করে কিছু বলেননি।

আরও পড়ুন