ফের দিনহাটায় প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল, পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামীকে মারধর করার অভিযোগ উঠল প্রধানের অনুগামীদের বিরুদ্ধে

দিনহাটা, ১০ নভেম্বরঃ ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল দিনহাটায়। নিজের এলাকার কাজে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদ করায় পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামীকে মারধর করার অভিযোগ উঠল প্রধানের অনুগামীদের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে দিনহাটা ১ নং ব্লকের পুটিমারি ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়ে। ওই ঘটনার পর আহত অবস্থায় দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয় ওই পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামীকে। ওই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে তাঁর এলাকার যাবতীয় কাজের ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছেন পঞ্চায়েতের প্রধান সাহানা পারভিন। উন্নয়নমূলক কাজের ক্ষেত্রে কাটমানিও নেওয়া হচ্ছে। না দিলেই নানা রকম ভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এবিষয়ে পঞ্চায়েত প্রধানের সঙ্গে কথা বলতে সোমবার সন্ধেয় অফিসে যান পঞ্চায়েত সদস্যা রমিচা বিবির স্বামী তথা স্থানীয় তৃণমূল নেতা আদম হোসেন।

জানা গেছে, সেখানেই প্রধানের সঙ্গে বচসা শুরু হয় আদমের। এরপরই ওই প্রধানে স্বামী এবং তার বেশ কয়েকজন অনুগামী পঞ্চায়েত সদস্যার রমিচা বিবির স্বামী তথা তৃণমূল নেতাকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে নিয়ে গুরুতর অবস্থায় তাঁকে ভরতি করা হয় দিনহাটা হাসপাতালে। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার কানের কাছে ধারল কোন লোহার দণ্ড দিয়ে আঘাত করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আক্রান্ত পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী আদম হোসেনের কথায়,“প্রধানের অনৈতিক কাজ নিয়ে প্রশ্ন তোলার গতকাল রাতে তার অনুগামীরা আমাকে মারধোর করে।”

তবে এবিষয়ে অভিযুক্ত পঞ্চায়েত প্রধান সাহানা পারভিন বলেন, কোথায় কি হয়েছে তা আমার জানা নেই। তবে আমার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।