কোচবিহার প্রসঙ্গে মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্ট তুলোধুনা করলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়

কোচবিহার: ভোট-পরবর্তী সন্ত্রাসের রিপোর্ট করতে এসে কোচবিহারের প্রাক্তন বিধায়ক তথা দিনহাটার পৌর প্রশাসক উদয়ন গুহকে সন্ত্রাসবাদি হিসেবে চিহ্নিত করেছেন মানবাধিকার কমিশন।

মঙ্গলবার কোচবিহার প্রেসক্লাবে সাংবাদিক বিবৃতিতে মানবাধিকার কমিশন বিজেপির কমিশন বলে কটাক্ষ করেছেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়। তিনি বলেন, যারা বিধায়ক কে আক্রমণ করল, তার হাত ভেঙ্গে দিল মানবাধিকার কমিশন তাদের বাড়িতে গিয়ে কুশল বিনিময় করেছেন।

যে সমস্ত তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা আক্রান্ত হয়েছে তাদের সাথে দেখা পর্যন্ত করেনি মানবাধিকার কমিশন। সুতরাং নিরপেক্ষতার চাদর আকড়ে থাকলেও এই কমিশন বিজেপি দ্বারা পরিচালিত।

কোচবিহারে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির জেলাসভা নেত্রী তথা বিধায়ক মালতি রাভা রায় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্ট নিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করেন।মানবাধিকার কমিশন কোচবিহারে ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসের জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের যে সব নেতৃত্বকে দায়ি করেছে তাঁদের নামও এদিন উল্লেখ করেন বিজেপি বিধায়িকা।

তিনি জানান, যে সব দুষ্কৃতিদের নাম উঠে এসেছে তার মধ্যে দিনহাটার প্রাক্তন বিধায়ক উদয়ন গুহ ছাড়াও প্রাক্তন কাউন্সিলার জয় ঘোষ, তৃণমূলের মহিলা নেত্রী মৌমিতা ভট্টাচার্য,। শীতলখুচিতে সহিদুল মিয়াঁ এবং আলি হোসেন মিয়াঁ, সিতাইয়ে রমণী বর্মণ, বেণু বর্মণ, মহেশ বর্মণ, তুফানগঞ্জে খলিল শেখ, জয়নুল হক, কাশেম আলি ও কমল মোদক, কোচবিহার সদরে সুভাস বর্মণ, বাবাই বর্মণ, চিত্তরঞ্জন বর্মণ।

তৃণমূল কংগ্রেসের এই সব দুষ্কৃতিদের নেতৃত্বে এখনও সন্ত্রাস চলছে বলে দাবী করেন বিজেপি নেত্রী মালতি রাভা। পার্থ প্রতিম রায় কটাক্ষ করে বলেন, যে বিধায়িকা কে মানুষের চোখের সামনে দেখতেই পায় না তিনি এত সুন্দরভাবে সন্ত্রাসবাদীদের নাম কিভাবে তুলে ধরল।

বিজেপির অঙ্গুলিহেলনে চালিত মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টের কোন মূল্য নেই।চোখের সামনে দেখতেই পায় না তিনি এত সুন্দরভাবে সন্ত্রাসবাদীদের নাম কিভাবে তুলে ধরল। বিজেপির অঙ্গুলিহেলনে চালিত মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টের কোন মূল্য নেই।