Ad
কোচবিহার

কোচবিহারে বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসুর জনসভাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ,আহত ৩,বাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগের অভিযোগ

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, দিনহাটা, ৫ ডিসেম্বরঃ বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসুর সভা ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হল কোচবিহার এর দিনহাটা মহকুমারের সিতাইয়ের নেতাজী বাজার এলাকায়। সেখানে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের সাথে সংঘর্ষে বিজেপির ৩ কর্মী স্ম্রথক আহত হয়েছে বলে অভিযোগ। এদের মধ্যে একজনকে মাথাভাঙার দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এছাড়াও একাধিক বাড়িঘড় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে।

বিজেপি সুত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সিতাই বিধানসভার গোসানিমারিতে সায়ন্তন বসুর সভা ছিল। ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, বিজেপির জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা, সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া বিধায়ক মিহির গোস্বামী ও যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অজয় সাহা। ওই সভায় যোগ দিতে আসার সময় সিতাইয়ের নেতাজি বাজার এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের সাথে বিজেপি কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ। সেখানে বিজেপি কর্মীদের আটকে রাখা হয়েছে বলে খবর পেয়ে যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অজয় সাহার নেতৃত্বে বিজেপি কর্মীরা সেখানে গেলে তাঁদের আটকে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

Ad

এই খবর সভাস্থলে এসে পৌঁছাতেই সায়ন্তন বসু বক্তব্য সংক্ষিপ্ত করে সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের হাতে মাইক তুলে দেন। আর সেই সভা থেকেই কার্যত সিতাইয়ের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়ার নাম উল্লেখ না করে হুক্কার ছাড়েন সাংসদ। কত বন্দুক বোমা আছে, তা নিয়ে তৈরি থাকতে বলেন, আর তিনি সিতাইয়ের নেতাজী বাজারে যাচ্ছেন বলেও জানিয়ে দেন।

এরপর বিশাল কনভয় নিয়ে ও সমর্থকরা নিয়ে বিজেপি নেতৃত্বরা ঘটনাস্থলের দিকে রওনা হন। পথে আদাবাড়ি ঘাট সেতুর উপড়ে ওই কনভয় আটকে দেয় পুলিশ। পরে আটক বিজেপি কর্মীরা সেখান থেকে উদ্ধার হলে বিজেপি নেতৃত্বরা ঘটনাস্থল থেকে চলে আসেন।

বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক বলেন, “এদিনের ঘটনায় যারা অভিযুক্ত তাঁদের পুলিশ যদি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার না করা হলে তাহলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে পুলিশের হাতে তুলে দেব।”

এ বিষয়ে বিজেপি যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অজয় সাহা বলেন, গোসানিমারিতে জনসভায় আসার সময় তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা তাদের কর্মীদের উপর আক্রমণ করে। বেশকিছু বিজেপি কর্মীর বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয় এবং বেশ কয়েকজনকে অপহরণ করে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। পরে জনসভাকে সংক্ষিপ্ত করে সিতাই এলাকায় গিয়ে অপহৃতদের উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়। তিনি বলেন, পুলিশ তৃণমূলের হয়ে কাজ করছে। তার জন্যই এই ঘটনাগুলো ঘটছে।

অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়া বলেন, “এদিন দিল্লীর কৃষি আন্দোলনের সমর্থনে রাজ্যের অন্যান্য এলাকার সাথে সিতাইতেও আমাদের কর্মসূচী ছিল। সেই কর্মসূচীর উপড়ে হামলা চালায় বিজেপির বাইক বাহিনি। আর তা নিয়েই উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে নিশীথ প্রামাণিক আর মালতি রাভার নেতৃত্বে এসে এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পরে পুলিশ এসে দ্রুততার সাথে সেই আগুন নেভায় ফলে খুব বেশী ক্ষয়ক্ষতি হয় নি। এদের এই সন্ত্রাসে সাধারণ মানুষ সন্ত্রস্ত হয়ে রয়েছে।”

আরও পড়ুন