বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিতে দেড় লক্ষ যুব কর্মী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করবে,দাবি প্রাক্তন সাংসদ তথা কোচবিহার জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়ের

ইউবিজি নিউজ কোচবিহার: বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিতে আগামী ৭৫ দিনে দেড় লক্ষ যুব কর্মী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করবেন কোচবিহার জেলায়। রবিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠক করে এই দাবি করলেন কোচবিহার জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়।

 

তিনি বলেন ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে যুবসমাজকে উদ্বুদ্ধ করা এক অন্যতম দায়িত্ব। সেই দায়িত্ব কে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই কোচবিহার জেলার একাধিক যুবকের সঙ্গে কথোপকথন হয়েছে। তারই ফল হিসেবে আগামী দিনে তারা সকলেই তৃণমূল কংগ্রেসের ছত্রছায়ায় চলে আসবেন।চারটি আলাদা আলাদা সভা করে তাদেরকে দলে যোগদান করানো হবে বলেও জানান তিনি।

 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার হয়ে যথেষ্ট উন্নয়নমূলক কর্মসূচি করেছেন,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একাধিক প্রকল্প বিশ্বদরবারে স্থান পেয়েছে। বন্দিত হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সুতরাং উন্নয়নই একমাত্র হাতিয়ার তৃণমূল কংগ্রেসের অখন্ডতার। আমরা সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি। ৭৫ দিনের যে কর্মসূচি পরিকল্পনা করা হয়েছে তার ফলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ অনেকটাই বৃদ্ধি পাবে। এই জনসংযোগে হয়ে উঠবে হাতিয়ার। যুবসমাজের পাশাপাশি জেলা তৃণমূল সমস্ত স্তরের বসে যাওয়া কর্মীদের কাছে যাচ্ছে।

 

দীর্ঘদিনের তৃণমূল কর্মী যারা আজ কোন কারনে বিক্ষুব্ধ,সংগঠন থেকে ছাড়া মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছেন তাদের ধরে ধরে পৌছবে তৃণমূল কংগ্রেস। সকলকে ফিরিয়ে আনা হবে মূল স্রোতে। দীর্ঘদিনের রাজনীতিবিদদের অভিজ্ঞতাই হয়ে উঠবে তৃণমূল কংগ্রেসের আগামী দিন চলার পাথেয়।

 

এদিন সাংবাদিকদের সাথে চর্চায় তিনি বলেন, বেশকিছু সাংগঠনিক কারণে যুবসমাজ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তারা রুষ্ট। তারা দুঃখিত। তাদের সমস্ত অভাব অভিযোগ শোনা হবে। তাদেরকে ফিরিয়ে আনার দায়িত্ব সকলের।

জেলার পাশাপাশি বিশেষ করে কোচবিহার উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের দিকে পাখির চোখ করেছে জেলা নেতৃত্ব। বিগত দুটি বিধানসভা নির্বাচনে কোচবিহার উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রটি নিজেদের দখলে আনতে পারেনি তৃণমূল। আজও সেখানে বামফ্রন্টের বিধায়ক বর্তমান। যদিও বা গোটা এলাকায় জেলা পরিষদ প্রচুর উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। তবুও মানুষের মন জয় করতে অক্ষম হয়েছে তৃণমূল।

 

২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে তাই কোচবিহার উত্তর বিধানসভা কেন্দ্র দখল অন্যতম টার্গেট হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে দফায় দফায় সাধারণ মানুষদের সঙ্গে বৈঠক সংঘটিত হবে বাংলার গর্ব মমতা কর্মসূচিকে সামনে রেখে।

 

কেন সাধারন মানুষ উন্নয়ন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন সেই দিকে বিশেষ নজর দেবে দল।আঞ্চলিক কোন নেতার বিরুদ্ধে কোন ধরনের অভিযোগ থাকলে তার দলীয় পর্যায়ে সমাধানের চেষ্টা করা হবে বলেও জানান পার্থ প্রতিম রায়।