Ad
কোচবিহার

সাধারণ মানুষকে করোনা নিয়ে সচেতন করতে পথ নাটিকার আয়োজন করল কোচবিহার জেলা প্রশাসন

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

কোচবিহার, ১৫ সেপ্টেম্বরঃ সাধারণ মানুষকে করোনা নিয়ে সচেতন করতে নিয়ে পথ নাটিকার আয়োজন করল জেলা প্রশাসন। এদিন কোচবিহার শহর ভবানীগঞ্জ বাজারে এই পথ নাটিকা পরিবেশন করেন।

এদিন সদর মহকুমা শাসক রাকিবুর রহমানের নির্দেশে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ত্রিদিব সর এর  উপস্থিতিতে এই পথ নাটিকাটি হয়।

Ad

এই সচেতনতা শিবিরে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার সদর মহকুমা শাসক রাকিবুর রহমান সহ দপ্তরের সকল আধিকারিকেরা। এই পথ নাটিকাটিতে এক জন সাধারণ নাগরিক কি করে এই করোনা নামটি বা এই রোগটি কি করে উপলব্ধি করল আর এই করোনার ভাইরাসের সাথে সম্পর্কিত মাস্ক, স্যনিটাইজার দেখল বা ব্যবহার শিখল তাও তুলে ধরা হয়।

এ ব্যপারে সদর মহকুমা শাসক রাকিবুর রহমান বলেন, করোনা আমাদের ছেড়ে যায়নি। এটা ভুলে গেলে চলবে না। কিন্তু এখন পুজোর মরসুম দোকানে ভিড় লেগেই রয়েছে। কিন্তু ভিড় থাকা সত্ত্বেও সাধারণ মানুষকে সচেতন হতে হবে, দোকানদারদের সচেতন হতে হবে। যাতে তারা মাস্ক হীন ক্রেতাদের মাল না দেন তার কথাও বলেন তিনি।

তিনি এও বলেন, কোচবিহার জেলা অনেক বড় জেলা এই জেলার পাশেই রয়েছে অন্য রাজ্য আসাম। আসাম থেকে অনেকে ব্যবসার জন্য আবার ডাক্তার দেখাতে কোচবিহারে আসেন। তাই সেই ক্ষেত্রে সবাইকে সচেতন হতে হবে। যাতে বাইরে থেকে কেউ করোনা নিয়ে এখানে ছড়িয়ে না দিতে পারে তাই মাস্ক ব্যবহার করা আবশ্যিক। তিনি আরও বলেন, করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের কথা শোনা যাচ্ছে। তাই আমাদের আরও বেশি করে সচেতন থাকতে হবে যাতে তৃতীয় ঢেউ আমাদের মধ্যে সংক্রমন না ছড়াতে পারে।

বাজারের দিলিপ করপুরকাইত নামে এক ব্যবসায়ী জানান, কোচবিহার জেলা প্রশাসন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে উদ্যোগ নিচ্ছে যাতে করোনা থেকে সকলকে সচেতন করা যায়। তিনি বলেন, এর আগেও কোচবিহার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে হাত জোর করে, গলাপ ফুল দিয়ে সকলকে করোনার বিরুদ্ধে সচেতন করেছে কিন্তু তাতেও অনেক দোকানদার সচেতন নয়। তারা যে যার মতো মাস্ক ছাড়া ঘুরে বেড়াচ্ছে, কিন্তু এটা করলে যে নিজে দেরই ক্ষতি তাও তিনি বলেন। তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের সাথে, প্রশাসনের কথা মেনে চললে তবেই প্রশাসনকে করোনার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সাহায্য করা হবে।

আরও পড়ুন