Ad
কোচবিহার

সীমান্তে ক্ষমতা বৃদ্ধির সাথে সাথে কৃষি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ বিএসএফ-এর বিরুদ্ধে

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, দিনহাটা: সীমান্তে বিএসএফের অত্যাচারের অভিযোগ তুলে দিনহাটা মহকুমা শাসকের কাছে ডেপুটেশন দিল দিনহাটা 2 নম্বর ব্লকের আটিয়ালডাঙা সীমান্ত এলাকার বাসিন্দারা।

মঙ্গলবার এই ডেপুটেশন দেওয়া হয়। তৃণমূল নেতা বিশু ধরের, বামনহাট-১ গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান দীপক ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে এদিনের এই ডেপুটেশন দেয়ার সময় এলাকার বাসিন্দারা বলেন, দিনহাটা 2 নম্বর ব্লকের আটিয়ালডাঙা সীমান্ত এলাকায় কাঁটাতারের বেড়ার ওপারে পঁচিশ থেকে ত্রিশটি পরিবার রয়েছে । তাদের ওপর বিএসএফ নানা ভাবে অত্যাচার চালিয়ে আসছে । ফলে তাদের জীবন-জীবিকা এক কঠিন সমস্যার মধ্যে এসে দাঁড়িয়েছে।

Ad

এলাকার বাসিন্দা শিবেন্দ্র নাথ বর্মন, জয়নাল শেখ, আব্দুল শেখ প্রমুখরা বলেন, যারা কাঁটাতারের ওপারে ভারতীয় ভূখণ্ডে বসবাস করেন, অথচ তাদের জমি-জিরেত এপারে রয়েছে, তারা ফসল কেটে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার সময় বিএসএফ বাঁধা দিচ্ছে। কাঁটাতারের যে গেট রয়েছে সেই গেট নিয়ম অনুযায়ী খোলা হয় না। বিএসএফের মর্জি মতো সেগুলি খোলা হয় । কাঁটাতারের ওপারে জমিতে চাষ করার জন্য সার বীজ নিয়ে ভিতরে যেতে দিচ্ছেনা বিএসএফ । প্রতিনিয়ত বিএসএফের এই অন্যায় অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

এ বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা বিশু ধর বলেন, সীমান্ত এলাকার মানুষ বিদেশি নয়। তারা তাদের মৌলিক অধিকার ভোগ করবে এটাকে কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। নচেৎ সাধারন মানুষ উদয়ন গুহর নেতৃত্বে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলবে। তিনি বলেন, কাঁটাতারের গেট পার হতে গেলে মানুষকে বেগার খাটিয়ে নিচ্ছে বিএসএফ। বিএসএফ কতটা দুর্নীতিগ্রস্ত তার তদন্তের দাবি তুলেছেন তৃণমূল নেতা বিশু ধর। তিনি বলেন, যদি বিএসএফ দুর্নীতিগ্রস্থ না হয় তাহলে সীমান্ত দিয়ে অবাধে গরু পাচার হচ্ছে কিভাবে। কিভাবে অনুপ্রবেশ হচ্ছে। অথচ নিয়মের নামে সাধারণ মানুষের উপর অত্যাচার করছে বিএসএফ।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় সরকার বিএসএফের ক্ষমতার এক্তিয়ার বাড়িয়ে পঞ্চাশ কিলোমিটার করার নির্দেশ জারি করেছে। এর প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভায় দাঁড়িয়ে রীতিমতো ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কেবল আটিয়াডাঙ্গা সীমান্ত এলাকাতেই নয়, দিনহাটা তথা কোচবিহারের বিভিন্ন সীমান্তে বিএসএফের সঙ্গে সাধারণ মানুষের যে সম্পর্ক তা কতটা মধুর তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ফলে আগামী দিনে বিএসএফের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কাছে আরও অভিযোগ জমা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে বিএসএফের বিরুদ্ধে বড়োসড়ো কোন আন্দোলনকে উড়িয়ে দিচ্ছেন না ওয়াকিবহাল মহল।

আরও পড়ুন