দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে কোচবিহারে উদ্বোধন হতে চলেছে মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের প্রশাসনিক ভবন

ইউবিজি নিউজ, কোচবিহার : দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হতে চলেছে কোচবিহার মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এর প্রশাসনিক ভবনের। উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রশাসনিক সূত্রে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার বিকেল তিনটে নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী পৌঁছবেন কোচবিহারে। সেখান থেকে তিনি সোজা চলে যাবেন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল উদ্বোধন করতে।

ইতিমধ্যেই কোচবিহার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নাম পরিবর্তন করে মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর তত্ত্বাবধানে। প্রাক্টিক্যাল ক্লাস এর জন্য কাজ শুরু হয়ে গিয়েছিল তিন বছর আগে থেকেই। প্রয়োজন ছিল প্রশাসনিক এবং থিওরি ক্লাস এর ভবনের।সেই দাবি পূরণ করে মঙ্গলবার উদ্বোধন হতে চলেছে এই প্রশাসনিক ভবন।

ইতিমধ্যেই মেডিকেল কলেজের প্রশাসনিক ভবনের রাস্তার কাজ শুরু করে দিয়েছে দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা। কোচবিহারের পৌর প্রশাসক ভূষণ সিং বলেন, আমরা রাস্তা মেরামত করে দিচ্ছি, করোনা আবহের কারণে সমস্ত এলাকা জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। বুধবার এই মেডিকেল কলেজের প্রশাসনিক ভবন উদ্বোধন হবে।

কয়েকটি সামান্য কাজ বাকি আছে। পরবর্তীতে সেগুলি হয়ে যাবে।কোচবিহারের এই মেডিকেল কলেজ দীর্ঘদিনের দাবি ছিল মানুষের। সেই দাবি পূরণ করতে কোন খামতি রাখেননি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। প্রায় ৪০০ একর জায়গা জুড়ে এই প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ করেছে। রাজবাড়ীর আদলে এই প্রশাসনিক ভবনের ওপর একটি গম্বুজ তৈরি করা হয়েছে। এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উন্নত মানের ডাক্তার কোচবিহার পাবে বলে আশা রাখছি।

ইতিমধ্যেই নীল সাদা রঙে সেজে উঠেছে কোচবিহারের এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রশাসনিক ভবন। সামান্য কয়েকটি কাজ বাকি রয়েছে, দ্রুতগতিতে সেই কাজ দেখছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা।একই সাথে দফায় দফায় জেলা প্রশাসনের আধিকারিক এবং মুখ্যমন্ত্রী সুরক্ষা স্বার্থে নিয়োজিত প্রতিনিধিরা মেডিকেল কলেজ পরিদর্শন করেছেন।

সূত্রের মাধ্যমে জানা গেছে, মেডিকেল কলেজ উদ্বোধন করেন তিনি যাবেন স্থানীয় একটি শিব মন্দিরে পুজো দিতে।সেখান থেকে কোচবিহার সার্কিট হাউসে রাত্রিযাপন করবার পর ১৬ তারিখ বুধবার রাসমেলা ময়দানে রাজনৈতিক সভায় যোগদান করবেন। তারপরে কোচবিহার থেকে তিনি বেরিয়ে যাবেন।