চা চক্রে বসে রাজ্য সরকার ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডাকাত- কয়লা মাফিয়া বলে কটাক্ষ সৌমিত্র খাঁ-র, পাল্টা জবাব উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীর

ইউবিজি নিউজ, কোচবিহার : গতকাল রাতেই কোচবিহার এসে পৌঁছেছেন বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। মঙ্গলবার সকালে কোচবিহারে এক চা চক্রে বসে রাজ্য সরকার ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে সৌমিত্র খাঁ, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একজন চোর, ডাকাত, কয়লা মাফিয়া। চাকরি দেব বলে ছেলেদের কাছ থেকে টাকা তুলেছে এলাকায় এলাকায়।

তিনি আরও বলেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলুন আমার বিরুদ্ধে কেস করতে আমি রাস্তায় বুঝে নেব। বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সৌমিত্র খাঁ বক্তব্যকে ঘিরে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে জোর চর্চা।সৌমিত্র খাঁ-র বক্তব্যর পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী তথা রাজ্যের সহ-সভাপতি রবীন্দ্র নাথ ঘোষ বলেন, সৌমিত্র খাঁ যা বলেছেন তা একজন পাগল মানুষ বলেতে পারেন।

রাঁচিতে গিয়ে পাগলাগারদে গিয়ে চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরুক। তিনি আরও বলেন, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিপুল ভোটে তৃতীয় বারের জন্য সরকার গঠন করবে তৃণমূল সরকার। তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিজপিতে শিক্ষিত কেউ নেই, তাঁরা কাউকে সম্মান দিতে জানেন না। যদি সম্মান দিতেন তাহলে তারাও সম্মান পেতেন।

পালটা সৌমিত্র খাঁকে তাঁর রাজনৈতিক উৎস মনে করিয়ে কোচবিহার জেলা যুব তৃণমূল সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক বলেন, ‘সৌমিত্রবাবুর বিরুদ্ধে আমরা কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করবো।’সম্প্রতি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে গুন্ডা বলে অবিহিত করেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।

তিনি ভাইপো শব্দে আপত্তি জানিয়ে নাম ধরে বলার জন্য বিরোধী নেতাদের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন, তাহলেই তিনি আইনের পথে হাটবেন বলে জানান। কিন্তু দিলীপ ঘোষকে গুন্ডা বলায় তাকেই আগে আইনি নোটিশ পেতে হয়। এদিন কোচবিহারে এসে অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের নাম উল্লেখ করে ডাকাত ও কয়লা মাফিয়া উল্লেখ করলেন বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি। এরপর অভিষেক বন্দোপাধ্যায় আইনি পথে যান কিনা, এখন সেটাই দেখার।