Ad
কোচবিহার

নেতৃত্বকে না জানিয়ে দল বিরোধী কাজ করায় দলের দুই কর্মীকে শোকজ কোচবিহার জেলা যুব সভাপতির

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

কোচবিহার, ৮ সেপ্টেম্বরঃ দলের নির্দেশ না মেনে একাধিক অঞ্চলের যুব সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করায় দলের এক ব্লক সহ সভাপতির বিরুদ্ধে শোকজ করার হুমকি দিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি কমলেশ অধিকারী।

আজ কোচবিহার প্রেস ক্লাবে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন কমলেশ বাবু। সেখানেই তিনি বলেন, “কোচবিহার যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর এখনও পর্যন্ত জেলা কমিটি বা ব্লক ও অঞ্চল কমিটি পরিবর্তন নিয়ে নেতৃত্ব কোন নির্দেশ দেয় নি। কিন্তু গতকাল দলের যুব সংগঠনের তুফানগঞ্জ ১ (এ) নম্বর ব্লকের সভাপতি রাজেশ তন্ত্রী এবং বেলাল হোসেন ৪ টি অঞ্চলের যুব সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করেছেন। তাই আমাদের না জানিয়ে এভাবে অঞ্চল সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করায় ওই ব্লক নেতৃত্বকে শোকজ করা হবে।”

Ad

কোচবিহারে তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী কোন্দল নতুন কিছু নয়, বিধানসভা নির্বাচনে জেলায় বেশীর ভাগ বিধায়ক পরাজিত হওয়ার পর তৃণমূলের জেলা সভাপতি ও যুব জেলা সভাপতি বদল হয়েছে। নতুন করে তৃণমূলের জেলা সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ ও যুব সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন কমলেশ অধিকারী।

দায়িত্ব পাওয়ার পর গোষ্ঠী কোন্দল মেটাতে গিয়ে গিরীন্দ্রনাথ বর্মণকে একাধিকবার বলতে শোনা গিয়েছে কোচবিহারে আর কেউ কোন দাদার অনুগামী থাকবে না। সকলে দিদির অনুগামী হবে। কিন্তু মুখে বললেও তা যে প্রকৃত পক্ষে কার্যকর হচ্ছে না, সেটা গতকাল তুফানগঞ্জ ১ (এ) নম্বর ব্লক তৃণমূল সহ সভাপতি রাজেশ তন্ত্রী নিজের মত করে তাঁর এলাকায় থাকা অঞ্চল কমিটির সহ সভাপতির নাম ঘোষণা করার পর স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

যদিও এদিন সদ্য দায়িত্ব প্রাপ্ত যুব জেলা সভাপতি কমলেশ অধিকারী বলেন, “দলে কোন গোষ্ঠী কোন্দল নেই। আমরা যুব তৃণমূল এবং মূল তৃণমূল কংগ্রেস ঐক্যবদ্ধ ভাবে কর্মসূচি পালন করছি। দুই একজন না বুঝে হয়ত ভুল করছেন। এছাড়া আমাদের মধ্যে কোন রকম কোন্দল নেই। আগামীদিনে দলের নেতৃত্বের সাথে কথা বলে আমরা আমাদের সংগঠনের শ্রীবৃদ্ধি ঘটাবো।”

আরও পড়ুন