শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে গুলির চিহ্ন রাইফেলের, সিআইডিকে জানাল ফরেনসিক ব্যালেস্টিক টিম

কোচবিহার, ৮ জুনঃ গতকাল, সোমবার শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথ পরিদর্শন করেন তিন সদস্যের ফরেনসিক ব্যালেস্টিক টিম। এদিন দীর্ঘক্ষণ ধরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তারা। সংগ্রহ করেন নানা নমুনা।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর ফরেনসিক ব্যালেস্টিক টিম প্রাথমিকভাবে সিআইডিকে জানিয়ে দিল, শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে স্কুলের দরজা ও ব্ল্যাকবোর্ডে যে গুলি চিহ্ন মিলেছে, তা রাইফেলের। অর্থাৎ ভোটের দিন রাইফেল থেকে বুথ লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। সূত্রের খবর এমনটাই। কিন্তু বাইরে গন্ডগোল হলে বুথ লক্ষ্য গুলি কেন? তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।

সম্প্রতি শীতলকুচি বিধানসভার জোড়পাটকির ১২৬ নম্বর বুথে যান সিআইডির তদন্তকারীরা। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তারা। সিআইডির অনুমান ছিল, ঘটনার দিন বুথ লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। দরজা ভেদ করে গুলি লাগে ব্ল্যাকবোর্ডে। এমনকী, সেদিন ব্ল্যাকবোর্ডে একটি চিহ্ন পাওয়া যায় বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফার ভোটের দিন শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চার জনের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় তোলপাড় হয়ে য়ায় রাজ্য–রাজনীতি। ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয় সিআইডিকে।

ঘটনার দিনই তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন, শীতলকুচিতে গিয়ে নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করবেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে বলা হয়, ৭২ ঘণ্টা কোনো রাজনৈতিক দলের নেতা কোচবিহারে প্রবেশ করতে পারবেন না। এর পর নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে নিহতদের সঙ্গে দেখা করেন মমতা।

ইতিমধ্যে দফায় দফায় পুলিশ সুপার থেকে শীতলকুচির প্রশাসনিক আধিকারিক–সহ কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদেরও কলকাতায় সিআইডি’র সদর দফতর ভবানী ভবনে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন গোয়েন্দারা।