সাবেক ছিটমহল মানুষের বার্ধক্য ভাতার দাবিতে দিনহাটা ২ নম্বর ব্লকের বিডিওকে ডেপুটেশন দিলেন সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দারা

দিনহাটা- সাবেক ছিটমহলগুলির ষাটোর্ধ্ব মানুষের বার্ধক্য ভাতার দাবিতে দিনহাটা 2 নম্বর ব্লকের বিডিওকে ডেপুটেশন দিলেন সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দারা।

মঙ্গলবার এই ডেপুটেশন দেওয়া হয়। এদিন এই ডেপুটেশন দেবার সময় সাবেক সিটমহল পোয়াতুরকুঠি এলাকার বাসিন্দা সাদ্দাম মিয়া বলেন, দিনহাটা 2 নম্বর ব্লকের যে সাবেক ছিটমহলগুলো রয়েছে এই সাবেক ছিটমহলের ষাট বছরের উর্ধ্বে যারা তাদের বার্ধক্য ভাতা প্রদানের কথা ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।

সেই ঘোষণা অনুযায়ী গত বছর প্রায় নয়’শ জন বয়স্ক মানুষ এই বার্ধক্য ভাতার জন্য আবেদন করেন ।এর মধ্যে ১৭৬ জনের নাম ভাতার জন্য অনুমোদন থাকলেও এখনো পর্যন্ত কেউ সেই ভাতার অর্থ পাননি। তাই তো বিডিওর কাছে বিষয়টি নিয়ে দাবী জানানো হল।

এদিন বিডিও রশ্মি দীপ্ত বিশ্বাসের হাতে দাবিপত্র তুলে দেওয়ার সময় সমস্যাটি নিয়ে আলোচনা হয়। বিডিও বিষয়টি জেলা প্রশাসনের নজরে আনবেন বলে বাসিন্দাদের আশ্বাস দেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ভারতের ১১১টি ছিটমহলের সঙ্গে বাংলাদেশের ছাপ্পান্নটি ছিটমহলের বিনিময় হয়। ফলে ভারতের অভ্যন্তরে অবস্থিত বাংলাদেশি ছিটমহলগুলো ভারতীয় ভূখণ্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়। বাংলাদেশি ছিটমহলের বাসিন্দারা ভারতীয় নাগরিকত্ব লাভ করেন।

স্বাধীনতার দীর্ঘ বছর পর এই ছিটমহল বিনিময়ের পর সাবেক ছিটমহলগুলোতে উন্নয়নের পরিকাঠামো তৈরি করার কাজে হাত দেয় ভারত সরকার। রেশন কার্ড, আধার কার্ড, ভোটার কার্ড সহ জমির কাগজপত্র তৈরির কাজও শুরু হয়। একজন ভারতীয় নাগরিক যে যে সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন, সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দারা সেই সেই সুযোগ সুবিধা পাবেন।

সেই অনুযায়ী সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দারা বার্ধক্য ভাতা পাওয়ার অধিকারী। অথচ এখনও পর্যন্ত তারা সেই বার্ধক্য ভাতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন এমনটাই অভিযোগ সাবেক ছিটমহলের বাসিন্দাদের।