কোচবিহারে শহীদ দিবসে ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল, জেলা জুড়ে চাঞ্চল্য

UBG NEWS: শহীদ দিবসে তৃণমূলের পতাকা উত্তোলন ও মাল্যদানকে কেন্দ্র করে আরও একবার কোচবিহার জেলা জুড়ে গোষ্ঠীকোন্দল স্পষ্ট হল বলে মনে করেন রাজনৈতিক মহল।

বুধবার ২১ শে জুলাই করোনা মহামারীর জন্য ভার্চুয়াল সভার আয়োজন করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। রাজ্যের প্রতিটি জেলায় পতাকা উত্তোলন ও মাল্যদানের মাধ্যমে শহীদ দিবস পালন করা হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। এই শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে কোচবিহার জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পার্থপ্রতিম রায় ও তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সহ সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মধ্যে গোষ্ঠীকোন্দল স্পষ্ট দেখতে পেল জেলার সাধারণ মানুষ।

শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে সকাল নয়টার দিকে পার্থ বাবু তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কার্যালয়ে পতাকা তোলেন ও মাল্যদান করেন এবং একই জায়গায় সকাল দশটার দিকে রাজ্য সহ সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ পুনরায় পতাকা তুলে ও মাল্যদান করে শহীদ দিবস পালন করেন।

এই বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য কমিটির সহ সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “আজকে শোক জানানোর দিন। আজকে শ্রদ্ধা জানানোর দিন। কে কোথায় কি নোংরামি করলো তাতে কিছু যায় আসেনা। দলের যারা নিষ্ঠাবান কর্মী তারা সব রয়েছেন। সকাল দশটা থেকে সাড়ে দশটায় সময় দেওয়া ছিল। তারা সবাই চলে এসেছে। সেখানে কে কোথায় কী করল। যার যেমন রুচি সেই রুচির পরিচয় দিল। ১৯৯৯ সালের ২১ জুলাইয়ের ওই কর্মসূচিতে যারা কোচবিহার থেকে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁরাও এসেছেন। প্রত্যেকেই শহীদদের শ্রদ্ধা জানাচ্ছে।”

তবে এনিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি।
শহীদ বেদীতে মাল্যদান ও দলীয় পতাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে পার্থপ্রতিম রায় ও রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মধ্যে দূরত্ব আরও স্পষ্ট হল বলে মনে করেন রাজনৈতিক মহল।