Ad
কোচবিহার

মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভূপ বাহাদুরের ১১০তম প্রয়ান দিবসে কোচবিহারের রাজ আমলের ইতিহাস পাঠ্য পুস্তকে অন্তরভুক্ত করার দাবি তুললেন বিধায়ক নিখিল রঞ্জন দে

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

কোচবিহার, ১৮ সেপ্টেম্বরঃ মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুব বাহাদুরের ১১০ তম প্রয়ান দিবস উৎযাপন হল কোচবিহারে। আজ কোচবিহার সাগর দীঘির পারে অবস্থিত আদালতের সামনে থাকা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুব বাহাদুরের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে তাঁর তিরোধান দিবস পালন করা হয়।

প্রথমে মাল্যদান করতে দেখা যায় কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক নিখিল রঞ্জন দে ও তুফানগঞ্জ বিধানসভার বিধায়িকা মালতি রাভা সহ বিজেপি নেতৃত্বকে। এছাড়াও মাল্যদান করেছেন কোচবিহার রয়্যাল ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সদস্যরা। পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও কোচবিহার জেলা সভাপতি গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ, উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পহিবহন সংস্থার চেয়ারম্যান পার্থ প্রতিম রায়কেও মহারাজার প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করতে দেখা যায়।

Ad

মাল্যদানের পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিধায়ক নিখিল রঞ্জন দে বলেন, আজ কোচবিহারের মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুব বাহাদুরের ১১০ তম তিরোধান দিবস। তাঁকে আমরা কোচবিহারের রূপকার হিসেবে চিনি। মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ মাত্র ৪৮ বছর বয়সে ইংল্যান্ডে মারা গিয়েছিলেন। তাঁর সময়ে কোচবিহার রাজ্য বিস্তারলাভ করেছিল। বিধায়ক দাবি করেন, রাজ্যের পাঠ্যসূচিতে কোচবিহারের ইতিহাস কোথাও উল্লেখনেই। যত দ্রুত সম্ভব পাঠ্যসূচিতে কোচবিহারের রাজ ইতিহাসকে অন্তর্ভুক্ত করতে প্রস্তাব রাখবেন বলেও এদিন বিধায়ক জানিয়েছেন।

কোচবিহার রয়্যাল ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের মুখ্যপাত্র কুমার মৃদুল নারায়ণ বলেন, আজ কোচবিহারের মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুব বাহাদুরের ১১০ তম তিরোধান দিবস পালন করা হল। আগামীতে তাঁর জন্ম দিবসও পালন করা হবে। কিন্তু শুধু এই মৃত্যু দিবস আর জন্ম দিবস পালন করলেই হবে না, সাথে সাথে কোচবিহার শহরের যেসব জায়গা গুলি হেরিটেজ ঘোষিত হয়েছে সেই সব জায়গা গুলো যাতে দ্রুত সংস্কার করা হয় প্রশাসনের কাছে দাবী রাখেন তিনি।

আরও পড়ুন