কোচবিহার

কোচবিহার এম.জে.এন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নতুন তিনটি পরিষেবা চালুর ঘোষণা করলেন এম.এস.ভি.পি রাজীব প্রসাদ

UBG NEWS,কোচবিহার: এম.জে.এন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে আগামী সপ্তাহ থেকে কার্ডিওলজি, নিউরোলজি ও নেফ্রলজির এই তিনটি বিষয় সুপার স্পেশালিটি পরিষেবা শুরু হতে চলেছে। সংবাদমাধ্যমে সে কথা জানালেন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে এম.এস.ভি.পি ডঃ রাজীব প্রসাদ।

২০১৮সালে কোচবিহার এম জে এন হাসপাতাল মেডিকেল কলেজের তার যাত্রা শুরু করেছিল তার পর থেকে এখানে স্পেশালিটি ক্লিনিক গুলি তার পরিষেবা দিয়ে আসছিল। কিন্তু কোভির্ড এর পর থেকে দেখা গেল এখানে কিডনি এবং হার্ড সংক্রান্ত রোগীদের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করতে হচ্ছিল। প্রাথমিক ভাবে সেই সমস্যা কাঠিয়ে উঠতে চলেছে কোচবিহার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল।

জেলা হাসপাতাল থেকে মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে উন্নীত করা হলেও কোচবিহার এমজেএন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে এই প্রথম কোন সুপার স্পেশালিষ্ট চিকিৎসক রোগী দেখতে চলেছেন। এতে কোচবিহার জেলার বাসিন্দারা ছাড়াও সংলগ্ন ডুয়ার্স ও নিম্ন অসমের অনেক রোগী উপকৃত হবেন বলে আশাবাদী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এই বিষয়ে কোচবিহার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের এমএসভিপি জানান, ২০১৮ সালে কোচবিহার মেডিকেল কলেজের যাত্রা শুরু করে এখানে স্পেশালিটি ক্লিনিক গুলির পরিষেবা দেওয়া হচ্ছিল। যেহেতু সুপার স্পেশালিস্ট ডাক্তারেরা জেলায় এসে পরিষেবা দিতে রাজি থাকেন না তা সত্ত্বেও আমরা তিন জন ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করেছি। তারাও আমাদের ডাকে সারা দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন আগামী মঙ্গলবার থেকে কার্ডিয়লজি ডক্টর সৌমেন কান্তি নন্দী বসবেন, বুধবার নেফ্রলজিস্ট ডক্টর সঞ্জীব কুমার পন্ডিত এবং শনিবার নিউরোলজিস্ট ডক্টর সৌমেন কান্তি কুমার তারা রোগীদের পরিষেবা দেবেন।

Ad

কোচবিহার বাসির কাছে একটি বড় পাওনা কারণ অন্যান্য মেডিকেল কলেজ গুলির মধ্যে এই প্রথম জেলার কোন মেডিকেল কলেজে ও হাসপাতালে সুপার স্পেশালিটি পরিষেবা দেওয়া হবে। তবে এই সুপার স্পেশালিস্ট ডাক্তারদের পরিষেবা পেতে হলে অবশ্যই রোগীকে কোন জেনারেল ফিজিশিয়ান বা কোন স্পেশালিস্ট ডাক্তারএর রেফার হয়েই আসতে হবে। সরাসরি এই ডাক্তার বাবুরা রোগীকে দেখবেন না।

মেডিক্যাল কলেজ হওয়ার পরেই চিকিৎসকের অভাবে শিলিগুড়িতে রোগী রেফার করে দেওয়ার অভিযোগ বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীরা তুলে আসছিলেন। আর্থিক ক্ষমতা না থাকায় অনেক গরীব মানুষ প্রাইভেটে বা অন্য কোথাও নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করাতে না পারার জন্য অনেক সময় রোগী মৃত্যুর ঘটনার অভিযোগও উঠেছে। এবার তিন স্পেশালিষ্ট চিকিৎসক নিয়োগ করায় সেই সমস্যা অনেকটাই মিটবে বলে মনে করা হচ্ছে।

[ লেটেস্ট খবর এবং আপডেট জানার জন্য ফলো করুন ইউবিজি নিউজ ফেসবুক পেজ । ব্রেকিং নিউজ এবং ডেইলি খবরের আপডেটে পেতে যুক্ত হোন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে  ]