‘বাংলা ঘরের মেয়েকে চায়’ কর্মসূচির সাংবাদিক সম্মেলন করতে গিয়ে সাংসদ নিশীথকে কুটুক্তি অভিজিৎ’এর

ইউবিজি নিউজ, কোচবিহার : “কোভিডের সময় সাংসদ তিন খানা মাস্ক পড়ে ভেন্টিলেটর আটকে দিয়ে ঘরের মধ্যে ছিলেন। এখন কোভিড পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়েছে, সাংসদ ঘর থেকে বেরিয়ে মঞ্চে উঠে গান গাইছেন।” মঙ্গলবার কোচবিহারের স্টেশন মোড় এলাকায় সংগঠনের জেলা কার্যালয়ে ‘বাংলা ঘরের মেয়েকে চায়’ কর্মসূচির সাংবাদিক সম্মেলন করতে গিয়ে কোচবিহারের সাংসদ তথা বিজেপি নেতা নিশীথ প্রামাণিককে ঠিক এভাবেই আক্রমণ করেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক।

সম্প্রতি কোচবিহার রাজবাড়ীতে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটন দফতরের উদ্যোগে রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক মহোৎসব অনুষ্ঠিত হয়। রাজবাড়ীর ভিতরে ওই অনুষ্ঠান নিয়ে প্রথম থেকেই গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশন আপত্তি জানিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত রাজবাড়ী চত্বরে ওই অনুষ্ঠান তিন দিন ধরে চলে।

অনুষ্ঠান শেষে রাজবাড়ীর ভিতরে আবর্জনার স্তূপ মাঠ সহ বিভিন্ন অংশের বেহাল অবস্থা তুলে ধরে স্যোসাল মিডিয়ায় সমালোচনা করতে দেখা যায় তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বকে। এরপর বিজেপির পক্ষ থেকে রাজবাড়ী চত্বরে সাফাই অভিযানেও নামা হয়।কিন্তু অনুষ্ঠান চলার সময় খ্যাতনামা শিল্পীদের পাশাপাশি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের গান গাওয়ার প্রসঙ্গ তুলে এতদিন কেউ কুটুক্তি করেন নি।

এদিন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি করোনা পরিস্থতিতে শুরু হওয়া লকডাউনে সাংসদকে সেভাবে ভুক্তভুগি মানুষের কাছে কোন রকম পরিষেবা পৌঁছে দিতে দেখা যায় নি বলে যেমন অভিযোগ করেছেন। তেমনি বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্বাভাবিক হওয়ার পর তাঁকে কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক মহোৎসবে সাংসদের গান গাওয়ার প্রসঙ্গ তুলে কুটিক্তি করতে দেখা গেল তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিককে।

এখন দেখার সাংসদ বা বিজেপির কেউ তৃণমূল যুব নেতার ওই কুটুক্তি নিয়ে কোন জবাব দেন কিনা?