কোচবিহারে করোনা রোগীদের অক্সিজেনের অভাব মেটাতে নতুন অক্সিজেন উৎপাদন কেন্দ্র গড়ে উঠছে মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে

কোচবিহার, ২৪ এপ্রিলঃ  গোটা দেশজুড়ে যেখানে অক্সিজেনের অভাব সেখানে পশ্চিমবঙ্গের প্রান্তিক জেলা কোচবিহারে অক্সিজেনের অভাব মেটাতে পি এস এ প্লান্ট ইনস্টলেশন কাজ শুরু হলো কোচবিহার মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে চারদিকে যখন হাহাকার শুরু হয়েছে, তখন কোচবিহার এমজেএন মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগিদের অক্সিজেন পৌছে দেবার জন্য একটি অক্সিজেন উৎপাদন কেন্দ্র গড়ে তুলল হাসপাতাল কৃতিপক্ষ।

কোচবিহারের জেলাশাসক পবন কাদিয়ান জানান, করোণা পরিস্থিতিতে রোগীদের অক্সিজেন অত্যন্ত আবশ্যক একটি উপাদান,। কোন অবস্থাতেই যাতে অক্সিজেনের অভাব না হয় সেই কারণেই এই প্লান্ট ইনস্টলেশন এর কাজ শুরু হয়েছে। ২৬শে এপ্রিল তারিখে ওই অক্সিজেন উৎপাদন কেন্দ্র তৈরির কাজ সম্পন্ন করে মেডিক্যাল কলেজের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলে নির্মান কারী সংস্থার কাছে জানান হয়েছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, অক্সিজেন উৎপাদন কেন্দ্র থেকে পাইপের মাধ্যমে করোনা আক্রান্ত রোগিদের জন্য বিশেষ ওয়ার্ডে অক্সিজেন পৌছে দেওয়া হবে। এতে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনা রোগিদের অক্সিজেনের সংকট পুরোপুরি ভাবে মিটে যাবে।

এর মাধ্যমে প্রতি মিনিটে 600 লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হবে। যা 95% কনসেনট্রেটেড। এর মাধ্যমে যেকোনো পরিস্থিতিতেই রোগীদের অক্সিজেন সাপ্লাই করা সম্ভব হবে। এই উদ্যোগ কোচবিহারের বর্তমান করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে অনেকটাই স্বস্তির নিঃশ্বাস দিয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। দেশজুড়ে এই মহামারীতে ব্যতিব্যস্ত রয়েছে প্রতিটি মানুষই। প্রায় প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা নিজের রেকর্ড ব্রেক করেছে। মূলত অক্সিজেন অভাবে বড় বড় হাসপাতাল গুলিতে রোগীমৃত্যুর খবর সামনে আসছে। এর পাশাপাশি বিভিন্ন হাসপাতাল গুলি জায়গা এবং অক্সিজেন অভাবে রুগিদের ভর্তি নিতে চাচ্ছেনা। এরই মাঝে কোচবিহার জেলা হাসপাতাল কৃতিপক্ষের এরকম এক উদ্দোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে শহরবাসী।