“এ বলে আমায় দেখ ও বলে আমায় দেখ”, দলবদল-পাল্টা দলবদলের খেলা অব্যাহত কোচবিহারে

ইউবিজি নিউজ, কোচবিহার, ১৮ সেপ্টেম্বরঃ “এ বলে আমায় দেখ ও বলে আমায় দেখ” কোচবিহারের রাজনীতিতে বর্তমানে এমনই অবস্থা।

একদিকে তৃণমূল সমর্থক পরিবারগুলির সদস্যদের বিজেপিতে যোগদানের দাবী করছেন বিজেপি নেতৃত্ব।

অন্যদিকে, বিজেপির দলবদলকে মিথ্যা নাটক বলে আখ্যা দিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বের দাবী, তৃণমূল থেকে বিজেপিতে নয়, বরং বিজেপিত ছেড়ে তৃণমূলেই যোগ দিচ্ছেন বহু মানুষ।

আজ বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের রাজ্য সভাপতি আলি হোসেনের উপস্থিতিতে ৩০০ তৃণমূল পরিবার বিজেপিতে যোগদান করলো বলে দাবি বিজেপি নেতৃত্বের।

কোচবিহার শহরের সুকান্ত মঞ্চে এই যোগ দান কর্মসূচী আয়োজিত হয়। কোচবিহার বিজেপির শীর্ষ নেতা নিত্যানন্দ মুন্সীসহ অন্যান্য নেতৃত্বরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিন বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের রাজ্য সভাপতি আলি হোসেন বলেন, তৃণমূলের লাগামহীন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে গ্রাম বাংলার দরিদ্র মানুষ নাজেহাল হয়ে পড়েছে। এমনকি সংখ্যালঘু শ্রেণীর মানুষেরাও বুঝে গেছে তৃণমূল তাদের জন্য কিছু করবে না। যদি তাদের প্রকৃত কেউ উপকার করতে পারে তাহলে বিজেপি করতে পারে। তাই আজ কোচবিহার জেলা থেকে প্রায় ৩০০ পরিবার বিজেপিতে যোগদান করলো বলে জানান তিনি।

তারা তৃণমূলের কোনো পদে না থাকলেও, তাদের সমর্থক ও ভোটার ছিলেন। আজ তারা বিজেপির সাথে যুক্ত হল বলে জানিয়েহেন আলি হোসেন।

অন্যদিকে, তৃণমূল সংখ্যালঘু সেল এর রাজ্য সাধারণ সম্পাদক গোলাম নবি আজাদ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজকর্মে উদ্বুদ্ধ হয়ে হাজারে হাজারে বিজেপি কর্মী তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন। কোচবিহার জেলাতেও তার ব্যতিক্রম নয়।

দলের কোচবিহার জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় এর হাত ধরে প্রতি সোমবার করে বিজেপি কর্মীরা তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন বলে দাবী করেছেন তিনি।

এমনকি কদিন আগেও সংখ্যালঘু মোর্চার কর্মীরাও তৃণমূলে যোগ দেন বলে দাবী তার। বিজেপির মাথা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় এখন মিথ্যা নাটক করছে বলে কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল সংখ্যালঘু সেল এর রাজ্য সাধারণ সম্পাদক গোলাম নবী আজাদ।