একুশকে মাথায় রেখে জেলা ও ব্লক স্তরে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করলো কোচবিহার জেলা তৃনমূল কংগ্রেস ও জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেস

কোচবিহার, ২ অক্টোবরঃ একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে জেলা ও ব্লক স্তরে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করলো কোচবিহার জেলা তৃনমূল কংগ্রেস ও জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেস। কোচবিহার জেলার ১২ টি ব্লক ও ৬ টি পৌরসভা ছাড়াও, সাংগঠনিক কাজের সুবিধার্থে অতিরিক্ত ৪ টি ব্লক করে মোট ২২ টি ব্লক-এর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হল।

কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় ও যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করে জেলা ও ব্লক স্তরের কমিটি গুলি ঘোষণা করেন। জেলা স্তরে বেশকিছু নতুন মুখ এবারের কমিটিতে স্থান পেয়েছে। একই সাথে ব্লক স্তরের কমিটিগুলো থেকে বাদ পড়েছেন বেশকিছু ব্লক সভাপতি।

এক সময় কোচবিহারে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল জেলা ও রাজ্য স্তরের নেতৃত্ব, এমনকি দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। জেলা সভাপতির পদ থেকে রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে সরিয়ে সভাপতি করা হয় বিনয় কৃষ্ণ বর্মন কে। ফের তাকে সরিয়ে জেলা সভাপতির আসনে বসানো হয় কোচবিহার জেলার প্রাক্তন সাংসদ পার্থ প্রতিম রায় কে।

পাশাপাশি যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বিষ্ণুপদ বর্মন কে সরিয়ে সভাপতি করা হয় অভিজিৎ দে ভৌমিক কে। শুক্রবার দলীয় দপ্তরে দুই সভাপতির জেলা ও ব্লক স্তরের কমিটি ঘোষণার মধ্য দিয়ে দলের ঘরোয়া কোন্দল কতটা মিটবে এখন সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন।