কোচবিহারে পরকীয়া করতে গিয়ে প্রতিবেশীদের হাতে ধরা পড়লেন প্রেমিক যুগল, প্রেমিক যুগলের মাথা ন্যাড়া করে বেধড়ক মারধর

শীতলকুচি, ৫ জুনঃ পরকীয়া করতে গিয়ে প্রতিবেশিদের হাতে ধরা পড়লেন প্রেমিক যুগল। প্রতিবেশিরা আইন নিজেদের হাতে তুলে নিয়ে প্রেমিক যুগলকে মাথা ন্যাড়া করা করে দিয়ে বেধড়ক মারধোর করে বলে অভিযোগ। এই অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে শীতলকুচি ব্লকের গোঁসাইরহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্য মধুসূদন গ্রামে ।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে গ্রামরেই এক বাসিন্দা নিজের স্ত্রী ও সন্তান থাকার পরেও তাঁর কাকাতো ভাইইয়ের স্ত্রীর সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত হতে গিয়ে ধরা পড়েন বলে দাবি করা হয়েছে। আরও দাবি করা হয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরেই কাকাতো ভাইয়ের অনুপস্থিতিতে তাঁর স্ত্রীর সাথে সম্পর্কে লিপ্ত হতেন ওই ব্যাক্তি।

এদিন কয়েকজন প্রতিবেশী নজর রেখে কার্যত তাঁদের হাতেনাতে ধরে ফেলে। এরপরে দুজনকে বেধে আটকে রাখা হয়। পরের দিন অর্থাৎ শুক্রবার সকালে ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই প্রতিবেশীরা এসে ঘটনাস্থলে ভিড় করে। এলাকার মাতব্বররা দুজনকে শাস্তির নিদান দেন। দুজনের মাথা ন্যাড়া করে বেধড়ক মারধর করা হয় বাসিন্দাদের সামনে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় শীতলকুচি থানার পুলিশ। দুজনকে উদ্ধার করে শীতলকুচি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আনা হয় এবং পরে থানায় আটক করে।

এই ঘটনায় শনিবার শীতলকুচি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন পরকীয়ায় অভিযুক্ত মহিলা। তিনি লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, “তাঁর স্বামী ভিন রাজ্যে কাজে গিয়েছেন। এই সুযোগ নিয়ে এদিন রাতে এক ব্যক্তি জোরপূর্বক ঘরে ঢুকে তাঁকে ধর্ষণ করেছে। পরে আরো কয়েকজন প্রতিবেশি দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে মারধর করে এবং মাথা ন্যাড়া করে দেয়। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানাই।”

এবিষয়ে শীতলকুচি থানার ওসি মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্তী জানায়- নিজের হাতে কেউ আইন তুলে নিতে পারে না। এই ঘটনার একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।