“বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়”, শাসক দলের নতুন স্লোগান নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে জেলা যুব সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক

UBG NEWS, কোচবিহারঃ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেসের নতুন স্লোগান “বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়”। এই শ্লোগান ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার জন্য আজ কোচবিহার জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক নিজের পার্টি অফিসে সাংবাদিক বৈঠক করেন।

বৈঠকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘বাংলার মাটি ও তার গৌরবময় ইতিহাসকে বোঝেন যিনি, তার উপর অগাধ বিশ্বাস আছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বাংলার গর্ব এবং তার সাথে আছে বিপুল জনসমর্থন ও বাংলার প্রতিটি মানুষের সায়। তার উপর মানুষের বিশ্বাস-এর জন্যই আজ বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বাংলার সম্প্রীতি, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির গরিমা সুরক্ষিত। শত প্রচেষ্টাও বাংলার শতাব্দী প্রাচীন ইতিহাসকে কালিমালিপ্ত করতে পারবেনা বর্গীরা। তার পাশে, তার শক্তি হিসেবে আছেন বাংলার প্রতিটি মানুষ।

বাংলাকে সকল অশুভ শক্তি থেকে রক্ষা করাতেই বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়। অসহায় ও বঞ্চিতদের সহায় তিনি, বাংলার প্রতিটি মানুষের বিপদের দিনের বন্ধু তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাম্য প্রতিষ্ঠা করতে ও সংবিধানের মর্যাদা রক্ষার্থে সারাজীবন ধরে করে চলেছেন সোচ্চার ও আপোষহীন সংগ্রাম। প্রতিটি মানুষের প্রতি এই অকৃত্রিম বন্ধুত্ব ও মানবতার জন্যই বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়।

বিগত ১০ বছরে বাংলার মানুষের মাথাপিছু গড় আয় দ্বিগুণেরও বেশি হয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রে কন্যাশ্রী প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ৬৮ লক্ষ যুবতী উপকৃত হয়েছেন। স্বাস্থ্য সাথী বিদ্যুৎ পরিষেবা খাদ্য সাথী, সমব্যথী প্রকল্প, কৃষক বন্ধু, পঞ্চায়েতে মহিলা সংরক্ষন ৩৩ শতাংশ বাড়িয়ে ফিফটি পার্সেন্ট, বিগত ১০ বছরে তপশিলি জাতি ও উপজাতির জন্য বর্ধিত বাজেট দ্বিগুণ বৃদ্ধি করা, ১০০ দিনের কাজের আওতায় ১৭৫ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান সুনিশ্চিত করা হয়েছে।

প্রায় ১৭ দশমিক ৩ লক্ষ প্রবীণ নাগরিক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী মানুষকে মাসিক এক হাজার টাকা করে ভাতা প্রদান। বাংলার প্রতিটি মানুষের পাশে রাত দিন, সাতদিন আছেন তিনি। এই রাজ্যের সকল মানুষের ভালো-মন্দের খবর রাখেন তিনি। এই বাংলার মনের কথা বোঝেন তিনি এবং প্রতিটি মানুষের বিপদে ঝাপিয়ে পড়ে সব সমস্যার সমাধানের দায়িত্ব তুলে নেন নিজের কাঁধে।’

তিনি আরও বলেন, কোচবিহারের রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য, রাজবংশী ভাষা একাডেমি, পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়, সম্প্রতি শীতলকুচি খলিসামারি তে পঞ্চানন বর্মার নামে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস স্থাপনের শুভ সূচনা করেছেন তিনি। ১০ বছরের অভূতপূর্ব উন্নয়ন এর জন্য এবং উল্লেখিত এই সকল কারণেই বাংলা নিজের মেয়েকে চায়।