দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহর ফেসবুক পোস্ট কে ঘিরে রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য

দিনহাটা, ১৪ জানুয়ারি: প্রথমে আগামী শুক্রবার দিনহাটার নয়ারহাট অভিযানের কর্মসূচিরর ঘোষনা দেন স্যোসাল মিডিয়ায়। এবার শুক্রবারের কর্মসূচী করতে না পারলে রাজনীতি ছাড়ার হুমকি দিয়ে ফেসবুক পোষ্ট দিলেন স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ।

দিনহাটা ২ নম্বর ব্লকের নয়ারহাট গোবরাছড়া গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রনে। সেখানে প্রধানের পদে রয়েছেন কোচবিহার জেলা পরিষদের প্রাক্তন কৃষি কর্মাধ্যক্ষ তথা বর্তমান কর্মাধ্যক্ষ মীর হুমায়ুন কবীরের স্ত্রী মমতাজ বেগম। দিনহাটা তৃণমূল কংগ্রেসে মীর হুমায়ুন কবীরের সাথে উদয়ন গুহের লড়াই এখন কার্যত প্রকাশ্যে।

Advertisement

রাজনৈতিক মহলের ধারনা আগামী বিধানসভা নির্বাচন জয়লাভে উদয়ন গুহের বাধা হয়ে রয়েছেন মীর হুমায়ুন কবীর। বিষেশ করে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে দিনহাটা ২ নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতির জনপ্রিয়তা রয়েছে। তাই তার এলাকায় নিজের প্রভাব বাড়াতে কার্যত মরিয়া হয়ে উঠেছেন উদয়ন বাবু। আর সেই কারনেই নয়ারহাট এলাকাকে টার্গেট করেছেন তিনি। কিন্তু এভাবে এলাকা অভিযানে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে পুলিশ প্রশাসনের অনেক আধিকারিক মনে করছেন।

উদয়ন গুহ বলেন , আমাকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে নয়ারহাট গোবরাছড়ায় গেলে দেখে নেওয়া হবে। অমুক করা হবে তোমুখ করা হবে। এলাকার বিধায়ক হিসেবে যদি না যেতে পারি তাহলে আমার রাজনীতি করা উচিত নয়। সেজন্যই লিখেছি পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী হয় শুক্রবার যাবো না হয় রাজনীতি ছাড়বো। আমার কর্মসূচি আগেই নেওয়া আছে।তারপরেও নানাভাবে হুমকি রাজ্য নেতারা দেখছেন কিনা আমি জানিনা। বারবার হুমকি দেওয়া হচ্ছে এর একটা প্রতিবাদ হওয়া দরকার।

নয়ারহাট গোবরাছড়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান মমতাজ বেগম বলেন, উনি চায় মানুষের সাথে হিংসা মারামারি করবে। তাই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। উনি এলাকায় মারামারি করতে হার্মাদ বাহিনি নিয়ে আসবেন বলে মনে হচ্ছে। উনি তৃণমূলকে ধ্বংস করার জন্যই নানাভাবে চেষ্টা করছে।

তৃণমূলের দিনহাটা ২ ব্লক প্রাক্তন সভাপতি জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মির হুমায়ুন কোবির বলেন, নয়ারহাটে এর আগেও তিনি এসে কর্মসূচি করেছেন। কে তাকে বাধা দিয়েছে। উনার এই পোস্ট দেখে মনে হচ্ছে বয়স হয়েছে। কে কি বলল তাই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখে কর্মীদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা হচ্ছে। এর আগেও একাধিকবার নয়ারহাটে কর্মসূচি নিয়েছিলেন লোক হয়নি। তাই শেষের দিন ফরওয়ার্ড ব্লক দলের এক কর্মীকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ এনে তৃণমূলকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করা হয়। ওই ব্যক্তি সুভাষ ভবনে সকাল সন্ধ্যা মাঝেমাঝেই গিয়ে বসে থাকেন।নান্দিনা সহ বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার কাজের প্রতিশ্রুতি দিলেও কাজ হয়নি সেগুলি মানুষ জিজ্ঞেস করে। তাই বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।

তৃণমূল কংগ্রসের অনেক জেলা নেতাও এধরনের ঘটনা এড়াতে দুই পক্ষের সাথে আলোচনায় নেমেছেন বলে সুত্রের খবর। আর সেই কারনেই এলাকা দখলে মরিয়া উদয়নের স্যোসাল মিডিয়ায় এমন পোষ্ট বলে মনে করা হচ্ছে।

এখন দেখার শুক্রবার উদয়ন বাবু নয়ারহাট এলাকায় কোন অভিযানে নামেন কিনা, আর না নামলে তার রাজনৈতিক ভবিষ্যত কি হয়, সেটাও দেখার জন্য দিনহাটার রাজনৈতিক মহল তাকিয়ে রয়েছে।