Ad
কোচবিহার

পার্থর উপর আস্থা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী, মিহির কে সরিয়ে রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান পদে পার্থ প্রতিম রায়

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, কোচবিহারঃ লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী চয়নের সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং আশ্বাস দিয়েছিলেন ভালো কিছু অপেক্ষা করছে তার জন্য। সেই আশ্বাস সম্পূর্ণরূপে বাস্তবায়ন হলো প্রাক্তন সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়ের ক্ষেত্রে।

মিহির গোস্বামী কে সরিয়ে কোচবিহার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হিসেবে পার্থ প্রতিম রায় কেই বেছে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। শুধু আশ্বাস নয় পার্থ প্রতিম রায়ের উপরে দিয়ে দেওয়া হল অনেক অনেক বেশি দায়িত্ব।

Ad

একই সাথে পুনরায় কনফেডের পেশাল অফিসারের দায়িত্ব সামলাবেন পার্থ প্রতিম রায়। দুটি দায়িত্বই দায়িত্বসহ পালনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে পার্থপ্রতিম রায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রী যে ভরসা যে বিশ্বাস আমার প্রতি রেখেছেন আমি প্রতি অক্ষরে অক্ষরে তা পালন করার চেষ্টা করব।

লোকসভা নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় প্রথম নামটিই ছিল পার্থ প্রতিম রায়ের, কিন্তু কোন এক রাজনৈতিক কারণে তার জায়গায় পরেশ অধিকারী কে প্রার্থী ঘোষণা করে তৃণমূল রাজ্য নেতৃত্ব, যদিও বা পরেশ অধিকারী হয়ে প্রচারে কোনরকম ফাক রাখেনি কোচবিহার জেলা তৃণমূলের অন্যতম বর্ষীয়ান নেতা পার্থ প্রতিম রায় তথাপি হারের সম্মুখীন হতে হয় তৃণমূল কংগ্রেসকে। তারপর থেকেই বারংবার পার্থ প্রতিম রায়ের নাম উঠে এসেছে দায়িত্বশীল নেতা হিসেবে।

১৪ ই জুন ২০১৯ শে কনফেডের স্পেশাল অফিসার হিসেবে পার্থপ্রতিম রায় কে নিযুক্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী। ছয় মাস সেই দায়িত্ব সামলানোর পরে তাকে দায়িত্ব চ্যুত করা হয়। ফের বৃহস্পতিবার লিখিতভাবে পুনরায় তাকে স্পেশাল অফিসারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে, কোচবিহার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগী স্বাচ্ছন্দ্যের অভাব নিয়ে একাধিক অভিযোগ উঠেছিল বেশ কিছুদিন থেকেই। রোগী কল্যাণ সমিতির প্রাক্তন চেয়ারম্যান মিহির গোস্বামী কে সরিয়ে এবার সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পার্থকে। অর্থাৎ পার্থ প্রতিম রায় কে যে নতুনভাবে নতুন আঙ্গিকে আরও অনেক বেশি দায়িত্ব দিয়ে দল ব্যবহার করবে তা স্পষ্ট করে দিল তৃণমূল রাজ্য নেতৃত্ব এবং তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কতটা সাবলীল থাকবেন পার্থ তা সময়ই বলে দেবে।

আরও পড়ুন