Ad
কোচবিহার

দেওয়ানহাটের প্রাক্তন সেনা কর্মী কে মারধরের ঘটনায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য, প্রাক্তন সেনা কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের স্থানীয়দের

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, কোচবিহার : দেওয়ানহাটের প্রাক্তন সেনা কর্মী কে মারধরের ঘটনায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য। সমীর কুমার দাস এর সমস্ত অভিযোগই মিথ্যা বলে জানালেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

প্রসঙ্গত, সমীর কুমার দাস ১৭ ফ্রেব্রুয়ারি কোচবিহার কোতোয়ালী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে  স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যা ঝর্ণা সরকারের স্বামী শিবু সরকার ও তার দলবলের বিরুদ্ধে।  এছাড়াও তিনি অভিযোগ করেছিলেন , কিছু দুষ্কৃতীরা প্রায়ই তোলা আদায়ের জন্য তার বাড়িতে আসতো ও তাকে ধমকাতো এবং সব শেষে টাকা না পেয়ে দুষ্কৃতীরা তাকে মারধর করে, এমনকি তাকে কিডন্যাপ করে বলেও অভিযোগ করেছিল।
কিন্তু এসব সব সাজানো গল্প এমনি অভিযোগ স্থানীয় এলাকা বাসীদের। কোচবিহার ১ নং ব্লকের দেওয়ানহাটের শালবাগান এলাকায় রাস্তার কাজ আটকে ঠিকাদারের কাছ থেকে চার লক্ষ টাকা নেওয়ার অভিযোগে প্রাক্তন সেনাকর্মী সমীর দাস এর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করলেন এলাকার মহিলারা।  
সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, এই সমীর কুমার দাস তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সাথে যুক্ত ছিল এবং তার বিরুদ্ধে কোচবিহার কোতোয়ালী থানায় অনেক কেস দায়ের রয়েছে, এছাড়াও জানা গিয়েছে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র রাখার দায়ে মামলাও রুজু রয়েছে। এরকম অনেক মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
জানা গিয়েছে, এলাকায় একটি পাকা রাস্তা তৈরি হচ্ছে। সেই রাস্তার কাজ পাওয়া কন্ট্রাক্টরের কাছ থেকে  পূজার নাম করে ৪ লক্ষ টাকা নেয় সমীর। রাস্তার কাজের মান খারাপ হওয়ায় ওই কন্ট্রাক্টরের সাথে কথা বলে টাকা নেওয়ার কথা জানতে পারেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপর রবিবার এলাকার লোকজন তাঁর কাছে ওই বিষয়ে জানতে চায় কেন  পূজার নাম করে কন্ট্রাক্টরের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে।  বিষয়টি জানতে পেরে গতকাল  দেওয়ানহাটের শালবাগান এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা ওই প্রাক্তন সেনা কর্মীকে মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় । এরপর আজ  প্রাক্তন সৈনিক সমীর কুমার দাসের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ তুলে কোতোয়ালি থানার  সামনে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা।

Ad

ওই এলাকার বাসিন্দা চম্পা চন্দ, শোভা দাস, ফুলেশ্বরী সিং প্রমুখ অভিযোগ করে বলেন, সমীর দাসের অত্যাচারে তাঁরা এলাকায় থাকতে পারছেন না। বাড়ির মহিলাদের ঘর থেকে বের করে মারধর করতো বলে তাঁরা অভিযোগ করেন। পুলিশের কাছ কঠোর শাস্তি দাবি করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা এবং মহিলারা। 

আরও পড়ুন – তৃণমূলের বিরুদ্ধে হামলা ও তোলাবাজির অভিযোগ প্রাক্তন সেনা কর্মীর

আরও পড়ুন