Ad
কোচবিহার

তৃণমূলের বিরুদ্ধে হামলা ও তোলাবাজির অভিযোগ প্রাক্তন সেনা কর্মীর I UBG NEWS

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, কোচবিহার : সারা দেশ যখন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদ সেনাদের  শ্রদ্ধা জানাচ্ছে এর মধ্যেই দেওয়ানহাট শালবাগান এলাকায় এক প্রাক্তন সেনা কর্মীর বাড়িতে তোলা চেয়ে হামলা চালালো কিছু দুষ্কৃতীরা।

অভিযোগ, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী পুত্র তথা কোচবিহার জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ পঙ্কজ  ঘোষের নাম করে এই তোলা আদায় চলছিল দেওয়ান হাট এলাকায়। সরাসরি অভিযোগ করেন এই সেনা কর্মী।

Ad

জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগে দেওয়ানহাট শালবাগান এলাকার বাসিন্দা প্রাক্তন সেনা কর্মী সমীর কুমার দাস এর কাছে কিছু দুষ্কৃতী ৪লাখ টাকা তোলা চায়, তিনি তাদের ১লাখ টাকা দিয়ে দিলেও তোলাবাজেরা বাকি টাকার জন্য চাপ দিতে থাকে। পরিবারের ওপরে চাপ বাড়তে থাকে প্রতিনিয়ত। এমন কি শেষে তাদের চিকিৎসাও বন্ধ করে দেয় তারা বলে অভিযোগ।


বিস্তারিত দেখুন ভিডিও তে 👇 

জানা গিয়েছে, দু’বছর আগে সেনার চাকরি থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নিয়েছেন প্রহৃত জওয়ান সমীর কুমার দাস৷ এই সেনা কর্মী যিনি এখন অস্থায়ী ভাবে বালুরঘাট এ থাকেন তিনি কোচবিহারে আসার পর কিছু দিনের মধ্যেই তার ওপরে হামলাও চালানো হয় বলে অভিযোগ।

সমীর বাবু জানান, ১৭ ফেব্রুয়ারি রবিবার বাকি টাকার জন্য দুষ্কৃতীরা সমীর বাবুকে চাপ দিলে তিনি তাদের আর টাকা দিতে না চাওয়াতেই সমীর বাবু এবং তার মা এর উপর চড়াও হয় দুষ্কৃতীরা, বেধড়ক মারধর করা হয় তাদের। শুধু তাই নয় দুষ্কৃতীরা সমীর বাবু-কে তুলে নিয়ে গিয়ে একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে আটকে রাখে। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনার তদন্তে নামে, এরপর পুলিশ আশঙ্কা জনক অবস্থায় সমীর বাবুকে উদ্ধার করে কোচবিহার এমজেএন হাসপাতালে নিয়ে যায়। এখন তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার চোখে আঘাতের চিহ্ন আছে, আঘাত আছে গোটা শরিরেও।  এই বিষয়ে সমীর বাবু কোচবিহার কোতোয়ালি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও কোন কাজের কাজ হয়নি বলেও অভিযোগ। 

অভিযোগ অনুসারে এলাকার পঞ্চায়েতের স্বামী শিবু সরকার প্রধান অভিযুক্ত। তার সাথে তার ভাই জীবন সরকার, স্থানিয় বাসীন্দা উত্তম সরকার, তাপস দে, মানস সরকার এর নামেও অভিযোগ রয়েছে। ১৭ তারিখের অভিযোগ পত্রের ক্রমিক নং ১২০৯/১৯।যদিও ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিবু সরকার।

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যা ঝর্ণা সরকারের স্বামী শিবু সরকার ও তার দলবলের বিরুদ্ধে কোচবিহার কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷ ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে শিবু সরকার৷ তাদের পাল্টা অভিযোগ, প্রাক্তন সেনা জওয়ান সমীর কুমার দাস চার লক্ষ টাকার প্রতারণা করেছে৷ এই ঘটনার পিছনে, শাসকদলের গোষ্ঠী কোন্দলই মূল কারণ বলে দাবি করছেন স্থানীয়রা৷ সূত্রের খবর, প্রহৃত সমীর কুমার দাস যুব তৃণমূলের সদস্য৷ অন্যদিকে পঞ্চায়েত সদস্যা ও তার স্বামী আদি তৃণমূলের সদস্য৷ গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই এই হামলা বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। তিনি বলেন, এলাকায় একটি পাকা রাস্তা তৈরি হচ্ছে। সেই রাস্তার কাজ পাওয়া কন্ট্রাক্টরের কাছ থেকে  পূজার নাম করে ৪ লক্ষ টাকা নেয় সমীর। রাস্তার কাজের মান খারাপ হওয়ায় ওই কন্ট্রাক্টরের সাথে কথা বলে টাকা নেওয়ার কথা জানতে পারেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপর রবিবার এলাকার লোকজন তাঁর কাছে ওই বিষয়ে জানতে চায় কেন  পূজার নাম করে কন্ট্রাক্টরের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি জানতে পেরে আমিও সেখানে যাই। ও মিথ্যা কথা বলে আমাদের নামে বদনাম রটাচ্ছে ও মিথ্যা মামলা করেছে। 

এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃনমূলের সহ সভাপতি তথা পূর্ত কর্মাধক্ষ জলীল আহমেদ বলেন,  আমরা পুলিশ কে পুর্ন তদন্ত করতে আবেদন করেছি, এই ঘটনা ঠিক কতটা সত্য তা দলীয় পর্যায়েও তদন্ত শুরু করা হয়েছে। এই ঘটনা ঘটে থাকলে তা অন্যায়, দলের জেলা নেতৃত্বরা অন্ধকারে, আমরা কিছুই জানি না। তবে এই ঘটনায় দলের কেউ জড়িত থাকলে দল তার ব্যবস্থা নেবেই। 
জেলা পুলিশ সুপার অভিষেক গুপ্তা জানান, একটা অভিযোগ এসেছে,ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ সেই সাথে প্রাক্তন সেনা কর্মী কে উদ্ধার করে হাসপাতালেও চিকিৎসা করানো হচ্ছে। গোটা বিষয় টা তদন্ত সাপেক্ষ, বেশ কিছু ধোয়াশা আছে, তদন্ত শেষে পুরো বিষয় টা জানানো হবে।

আরও পড়ুন