ফাঁকা বিধানসভা আসনগুলিতে দ্রুত নির্বাচনী প্রক্রিয়া শেষ করার দাবি তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : রাজ্যে উপনির্বাচন (by election) দ্রুত সম্পন্ন করার দাবি তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (mamata banerjee)। এদিন তিনি নবান্নে করা সাংবাদিক সম্মেলনে এই দাবি তোলেন। পাশাপাশি তিনি অভিযোগ করেন, গত বিধানসভা নির্বাচন আটদফা (eight phase election) করাতেই করোনার সংক্রমণ (coronavirus) দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছিল।

যে কেন্দ্রগুলিতে উপনির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে

করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রার্থীদের মৃত্যু হওয়ায় মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরে ভোট স্থগিত হয়ে গিয়েছিল । করোনা আক্রান্ত হয়ে ফল বেরনোর আগেই মৃত্যু হয় খড়দহের তৃণমূল প্রার্থীর। অন্যদিকে দিন কয়েক আগে করোনায় প্রয়াত হয়েছেন গোসাবার তৃণমূল বিধায়ক জয়ন্ত নস্কর। এছাড়াও শান্তিপুর এবং দিনহাটা আসন দুটি থেকে পদত্যাগ করেছেন বিজেপির দুই সাংসদ জগন্নাথ সরকার এবং নিশীথ প্রামাণিক। অন্যদিকে ভবানীপুর আসনে জয়ী তৃণমূল প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় পদত্যাগ করায় আসনটি শূন্য রয়েছে।

শপথ গ্রহণের ছয়মাসের মধ্যে নির্বাচিত হতে হবে মুখ্যমন্ত্রীকে

৫ মে তৃতীয়বারে জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাধীন ভারতে পশ্চিমবঙ্গের ইতিহাসে এবারই প্রথম পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিধায়ক নন। তাই তাঁকে ছয় মাসের মধ্যেই নির্বাচিত হয়ে আসতে হবে। এক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের ছেড়ে দেওয়া ভবানীপুর থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলেই মনে করছেন অনেকে।

দ্রুত নির্বাচনের দাবি মুখ্যমন্ত্রীর

এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ফাঁকা থাকা বিধানসভা আসনগুলিতে দ্রুত নির্বাচনী প্রক্রিয়া শেষ করার দাবি তুলেছেন। এর জন্য তিনি বলেছেন, ভোটের প্রচারের জন্য সাত দিন সময় দিলেই যথেষ্ট। রাজ্যের ইতিহাস ঘাটলে দেখা যাবে উপনির্বাচনগুলিতে বেশিরভাগ সময়েই শাসকদল জয়ী হয়েছে। ফলে উপনির্বাচন হলে তৃণমূলের আসন সংখ্যা যে আরও বাড়বে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।