ads

শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে নববর্ষকে স্বাগত জানালো দিনহাটা মঙ্গল শোভাযাত্রা কমিটি।UBG NEWS



UBG NEWS, নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: সম্প্রীতির বার্তা দিয়ে শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে নববর্ষকে স্বাগত জানালো দিনহাটা মঙ্গল শোভাযাত্রা কমিটি। সোমবার দিনহাটা শহরের বোডিং পাড়া মাঠ থেকে এই শোভাযাত্রা শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করে। এই শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে মূলত কোচবিহার লোকসংস্কৃতি পাশাপাশি সম্প্রীতি এবং বাংলা ঐতিহ্যকে ফুটিয়ে তোলা হয়। ও তাই নয় এই শোভাযাত্রায় কীর্তন এর পাশাপাশি গজল পরিবেশন করা হয়। মুখোশ নিয়ে বাংলার লোকসংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে তুলে ধরেন উদযাপন কমিটির সদস্যরা।মেয়েরা ঐতিহ্যবাহী হলুদ শাড়ি ও ছেলেরা হলুদ পাঞ্জাবি পড়ে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন। মূলত দিনহাটার কিশোর বাহিনী এই মিছিলের নেতৃত্ব দেয়। এদিনের এই শোভাযাত্রায় সংস্কৃতিপ্রেমী বহু মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এদের এই শোভাযাত্রায় সেখানে উপস্থিত ছিলেন দিনহাটার বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী প্রসেনজিৎ ভৌমিক, আবৃত্তিকার শিলাদিত্য রায়, দিনহাটা আরেক আবৃত্তিকার স্বপন রায়, সাহিত্যিক জাকির হোসেন স্মৃতিজিৎ, শিক্ষক বিকাশ পাল, শিক্ষক শঙ্খনাদ আচার্য, দিনহাটা নাগরিক মঞ্চের সম্পাদক জয়গোপাল ভৌমিক, প্রবীণ নাগরিক শ্যামল ধর সহ আয়োজক সংস্থার পক্ষে সায়ন দাস, সুব্রত রায়, তন্ময় কর্মকার, প্রেরণা রায় সহশ্রী বর্মন প্রমুখ। আয়োজক সংস্থার সদস্য বলেন, বাংলা নববর্ষের দিনে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিতে বাংলাদেশের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরা প্রথম ১৯৮৯ সালে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করে।সেই শোভাযাত্রা অনুকরণ করে গত বছরও দিনহাটা তো বাংলা নববর্ষের দিনে এই মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। সেবার এই শোভাযাত্রা সকলের মনে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল।সেই সাফল্যকে ফের একবার উজ্জীবিত করতে এ বছরও শোভাযাত্রা বের করা হয়।তাহলে দাবি উত্তরবঙ্গের মধ্যে প্রথম দিনহাটা তাই এরকম মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়।সম্প্রতি বার্তা দিতে শিশুরা আর হিন্দু মুসলিম খৃষ্টান শিখ সহ বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী সাজে সেজে উঠেন। পাশাপাশি পারস্পরিক সহাবস্থানের ভিত্তিতে সারিবদ্ধ ও শৃঙ্খলা ভাবে তারা শহরে বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করেন। এছাড়াও গিটার হাতে গান করেন নবীন প্রজন্মের শিল্পীরা।কীর্তন ও গজল এর পাশাপাশি নজরুল গীতি,রবীন্দ্র সংগীত , ভাওয়াইয়া পরিবেশন করা হয়। মাউন্ট বোর্ড পেপার দিয়ে প্রায় কুড়িটি মুখোশ তৈরি করা হয়। বাঘ, ময়ূর ,প্যাঁচার আদলে পাশাপাশি কোচবিহার লোকদেবতা মাসান ঠাকুর সহ বিভিন্ন দেবদেবীর আদলে তৈরি করা হয় মুখোশ। সেই মুখোশ গুলি হাতে নিয়েই তারা সবাই অংশগ্রহণ করেন। এদিনের এই শোভাযাত্রা কে দেখতে রাস্তার দুই ধারে তাড়িয়ে সাধারণ মানুষ উপভোগ করেন।

Post a Comment

0 Comments