ads

রাসেল ঝড়ে উড়ে গেল হায়দরাবাদ, দুর্ধর্ষ জয় নাইটদের | UBG NEWS

UBG NEWS, ওয়েব ডেস্ক : ১৭ ওভার শেষেও কে ভেবেছিল! এক রাসেল ছাড়া! কিঞ্চিত ভারী হয়েছে কি তাঁর চেহারা! একটু কি শ্লথ! এসব কথা গ্যালারিতে উড়ে গেল তাঁর ছক্কার সঙ্গে সঙ্গে। গেল বলা ভুল। যেতে থাকল। ভুবনেশ্বর কুমারকেও যখন ছক্কা আর চার মারতে থাকলেন, ইয়র্কারকেও পাঠিয়ে দিলেন বাউন্ডারিতে, তখন ক্রিকেট দেবতা সম্ভবত সমালোচকদের দিকে নীমিলিত দৃষ্টিতে তাকিয়ে ছিলেন। তবে অনস্বীকার্য নীতীশ রানার ভূমিকাও। একা হাতে টেনে যাচ্ছিলেন তিনিই। ফ্লাডলাইট সমস্যার সময়ে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়া বোধহয় তাঁর মনঃসংযোগে আঘাত ঘটিয়ে থাকবে।

এদিন টসে জিতে প্রথমে হায়দরাবাদকে ব্যাট করতে পাঠান কেকেআর ক্যাপ্টেন দীনেশ কার্তিক। দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর ক্রিকেটের মূল স্রোতে ফিরেই চমক ডেভিড ওয়ার্নারের। কেকেআর বোলারদের ঠেঙ্গিয়ে ৫৩ বলে ৮৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন তিনি। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেন বেয়ারস্টো (৩৯) বিজয় শঙ্কর (৪০)। এদের সৌজন্যেই কুড়ি ওভারে তিন উইকেটে বিনিময়ে ১৮১ রান করে সানরাইজার্স। কেকেআর বোলারদের মধ্যে আন্দ্রে রাসেল দুটি পীযূষ চাওলা একটি উইকেট নেন।


জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা একেবারেই ভালো হয়নি কলকাতার। ব্যক্তিগত সাত রানের মাথায় সাজঘরে ফিরে যান মারকুটে ক্রিস লিন। এরপর দলের ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন নীতিশ রানা ও রবিন উথাপ্পা। কিন্তু সিদ্ধার্থ কৌলের বলে ৩৫ রানে আউট হয়ে যান তিনি। ব্যর্থ হন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ও ( ২)। চেষ্টা করেও শেষ অবধি থাকতে পারলেন না রানা (৬৮)। শেষ দিকে যখন মনে হচ্ছিল হেরেই যাবে কলকাতা, তখনই বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন রাসেল। ১৯ বলে ৪৯ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন শুভমান গিল (১৮)। তাদের সুবাদে দুই বল বাকি থাকতে ম্যাচ জিতে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স।

বোলিং বিভাগ নিয়ে KKR বাহিনীর ভাবার প্রয়োজন আছে কিনা, সে কথা সময় বলবে। প্রথম ম্যাচ দেখে কিছু ভবিষ্যদ্বাণী করা বেশি বাড়াবাড়ি। তবে নারিনের কার্যকারিতা, কুলদীপের ম্যাজিক এসব আজ কিন্তু প্রশ্নের মুখে পড়ে গেছে।

তবে দিনের শেষে রাসেল, রাসেল এবং রাসেল। আজ ফের একবার নিজের অলরাউন্ড কার্যকারিতা প্রমাণ করেছেন তিনি। তাঁর সৌজন্যেই, কিং খানের উপস্থিতিতে আরও একবার ডেবিউ ম্যাচ জেতার রেকর্ড অক্ষুণ্ণ রাখল কেকেআর।

Post a Comment

0 Comments