ads

কে আসল প্রার্থী, বিতর্কে জড়াচ্ছে তৃনমূল | UBG NEWS

UBG NEWS, কোচবিহার : শাসক দলের প্রার্থী কে, এখন জল্পনা শুরু হয়েছে জেলার সর্বত্র। খাতায় কলমে এবং মনোনয়নের নিরিখে পরেশ অধিকারী তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী কিন্তু তাকে পাওয়া যাচ্ছে কোথায় ? দৈনিক খুলি বৈঠক ছাড়া আর কোথাও দেখা মিলছে না প্রার্থীর। দেখা পাওয়া তো দূরের কথা গ্রামাঞ্চলের কর্মীদের অভিযোগ তাকে ফোন করলে পরেও পাওয়া যাচ্ছে না। কোথায় কখন জনসভা থাকছে বা কোনো মিছিল এর আগাম কোনো বার্তাই কর্মীদের কাছে পৌঁছছে না বলেই একাংশের দাবি। তৃণমূলের অন্যতম বড় সংগঠন যুব তৃণমূলের কাছেও প্রার্থীকে দেখা যাচ্ছে না। তাহলে প্রশ্ন উঠছে প্রার্থী আছেন কোথায় ?

কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে সুদূর মেখলিগঞ্জ থেকে কোচবিহার কেন্দ্রে প্রচারে অসুবিধা হচ্ছে তাই প্রচারের খাতিরে জেলার সভাপতি সেনাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ছত্রছায়া তেই আছেন তিনি। এও জানা যাচ্ছে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ এর অনুমতি ছাড়া কোনো কর্মী সভার বা সংবাদমাধ্যমকে কোনও মন্তব্য করার ক্ষেত্রেও করা নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে প্রার্থী ওপর। কার্যত সেই কারণেই কারো ফোন ধরছেন না তৃণমূল প্রার্থী পরেশ অধিকারী।



একদিকে যেখানে মিছিল ও জনসভার মাধ্যমে প্রচারে তৎপরতা দেখিয়েছে বিরোধীরা সেইখানে প্রচারের খবরই পাওয়া যাচ্ছেনা শাসক দলের। জেলার রাজনৈতিক মহলের অনুমান এর ফলে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে পৌঁছে যেতে পারে তৃণমূল। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী ছাড়া আলাদাভাবে প্রার্থী কে পাওয়া যাচ্ছে না দেখেও কোচবিহার কেন্দ্রের বিস্তীর্ণ এলাকায় কর্মীসভা ও জনসভা বাতিল করেছে স্থানীয় নেতৃত্বরা। কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে বিভিন্ন এলাকায় কর্মীসভা থাকলেও এলাকার বিধায়ক মিহির গোস্বামী-র সঙ্গে কোনো রকম যোগাযোগ করেননি পরেশ অধিকারী বলেও অভিযোগ উঠেছে। আবার কোচবিহার উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রটি তৃণমূলের দখলে না থাকলেও রবি পন্থী হওয়ার কারণে ওই এলাকায় বেশ কিছু প্রচার করেছেন পরেশ। যদিও বা এইসব এর পেছনে জেলা সভাপতির ইন্ধন ই অন্যতম কারণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

অপরদিকে যুব তৃনমূলের একাংশের দাবি তাদের সাথে কোনোরকম যোগাযোগ করছে না তাদের নিজেদের প্রার্থী পরেশ অধিকারী। এমনকি তাকে ডেকেও পাওয়া যাচ্ছে না। কার্যত এই কারণেই প্রার্থী ছাড়াই একাধিক ছোট ছোট বৈঠক করতে হচ্ছে যুব তৃণমূল সদস্যদের। প্রকাশ্যে অবশ্য এই বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ উভয়পক্ষই।

কোচবিহার দক্ষিণের বিধায়ক বলেন একজন প্রার্থীর পক্ষে গোটা এলাকা প্রচার করা সম্ভব নয় তাই হয়তো কোচবিহার দক্ষিণ প্রচার করে উঠতে পারেনি। একই সাথে তিনি আরও বলেন প্রার্থী না থাকলেও দক্ষিণ কেন্দ্রে প্রচুর ভোট দেবে জনগণ।
জেলাসভাপতি রবীন্দ্র নাথ ঘোষের সাথে এভাবে জোকের মত লেগে আছে প্রার্থী তাতে বোঝার উপায় নেই আসল প্রার্থী কে ? রবী ঘোষ ছাড়া এক পাও নরছেন না পরেশ। এমন কি রবীন্দ্রনাথ বাদে অনান্য কোনো বিধায়ক দেরও পাত্তা দিচ্ছেন না বলেও অভিযোগ তৃনমূল অন্দরে।

এই বিষয়ে প্রার্থির কোনো মন্তব্য পাওয়া যায় নি। তবে রবীন্দ্র নাথ ঘোষ বলেন- প্রচার ঠিকই চলছে, ফলাফলেই তার প্রমান দেখা যাবে।

Post a Comment

0 Comments