ads

আমার ধর্ম একটাই, মানবতা:‌ মমতা ব্যানার্জি I UBG NEWS

ওয়েব ডেস্ক:‌ ফের একবার কেন্দ্রকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। হাওড়ার ডোমজুড়ে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনের পাশাপাশি কেন্দ্রকে ফের তোপ দাগলেন তিনি। শুধু তাই নয়, মানবতা ছাড়া তিনি যে অন্য কোনও ধর্মে বিশ্বাস করেন না, আমার ধর্ম একটাই, সেটা মানবতা, সেটাও পরিস্কার করে জানিয়ে দিলেন। মমতা বলেন, ‘কেন্দ্রীয় সরকারের এক্সপায়েরি ডেট আসন্ন। ভোট আসছে, তাই মোদি সরকার দেশে বিভাজনের রাজনীতি করছে। তথ্য বিকৃতির চেষ্টা করছে। এখন খালি বন্দুক, বোমা, মিসাইল দেখাচ্ছে। একটা কথা পরিস্কার করে জানাতে চাই, আমরা সেনার সঙ্গে, দেশের মানুষের সঙ্গে, সভ্যতা–শিক্ষা–সংস্কৃতির সঙ্গে আছি। কিন্তু মোদিবাবুর সঙ্গে নেই। মোদি–অমিত শাহ গেলে দেশ বেঁচে যাবে।‌’ এরপরই তিনি বিজেপি কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘‌বিজেপি কর্মীরা গুগলে সার্চ করে জানতে চাইছে, আমার ধর্ম কী? তাঁদের একটা কথা বলে দিতে চাই, আমার একটাই ধর্ম। আর সেটা হল মানবিকতা।‌’ এদিনের বক্তৃতায় একাধিক প্রকল্পের কথাও তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। জানান, নতুন করে তিন একর জমিতে স্বাস্থ্যভবন তৈরি হবে। আর সেটা হবে নবান্নের পিছনের জমিতে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, ‘‌রাজ্যে ৩০টি হেলিপ্যাড তৈরি হয়েছে। মালদা, কোচবিহার, বালুরঘাট, অন্ডালে বিমানবন্দর তৈরি হয়েছে। আগামিদিনে পুরুলিয়াতেও একটি বিমানবন্দর তৈরি করা হবে। আমাদের কন্যাশ্রী প্রকল্প এখন বিশ্বে সেরার তকমা পেয়েছে। পশ্চিমবঙ্গই একমাত্র রাজ্য যেখানে কৃষিজমিতে খাজনা নেই। ১৯৪৭ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত রাজ্যে ১২টি বিশ্ববিদ্যালয় ছিল। আর গত সাড়ে সাত বছরে ২৯টি বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছি আমরা। আরও ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা হবে। কেন্দ্র তো খালি মিথ্যে কথা বলে। কেন্দ্রের টাকা আমরা নিই না। আর ওরা কোনও কিছুতে টাকা দেয়ও না। অথচ সমালোচকরা এই উন্নয়ন চোখে দেখতে পাচ্ছেন না। এত কাজ করার পরও বলবেন, মা, মাটি, মানুষের সরকার কোনও কাজ করছে না। অথচ আজ কলকাতা পুরো পাল্টে গেছে।’ এরপর কর্মসংস্থান প্রসঙ্গেও মোদিকে বিদ্ধ করেন তিনি। বলেন, ‘সারা ভারতবর্ষ জুড়ে যখন নোটবন্দি হয়েছিল তখন আমিই নোটবন্দিকে প্রথম খারাপ বলেছিলাম। ‌নোটবন্দির পর থেকে ২ কোটি ছেলেমেয়ে চাকরি হারিয়েছে। ১২ হাজার কৃষক আত্মহত্যা করেছে। আর বাংলা সেখানে কর্মসংস্থানে সেরা। একশ দিনের কাজে আমরা সবার থেকে এগিয়ে। এখনও পর্যন্ত বাংলায় ৪০ শতাংশ বেকারত্ব কমেছে।’‌‌‌
বুধবার হাওড়ার ডোমজুড়ের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জানিয়ে দিলেন, আরও একটা নতুন বিমানবন্দর পাবে বাংলা। পুরুলিয়ায় গড়ে তোলা হবে ওই বিমানবন্দর। পরীক্ষামূলক হেলিকপ্টার উড়িয়ে সেই কাজ অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে।
মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, মালদহ, কোচবিহার, বালুরঘাট এবং অণ্ডালে নতুন বিমানবন্দর চালু হয়েছে। এমনকী রাজ্যে ৩০টি হেলিপ্যাড চালু হয়েছে। একইভাবে পুরুলিয়াতে বিমানবন্দর গড়ে তোলা হবে। ২০১৮ সালের ৩ জুলাই পুরুলিয়ার ছররায় পরিবহণ দপ্তরের উদ্যোগে পরীক্ষামূলক হেলিকপ্টার চালানো হয়েছিল। তখন পুরুলিয়ার জেলাশাসক অলোকেশপ্রসাদ রায় জানিয়েছিলেন, মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে ছিলেন জেলায় হেলিকপ্টার পরিষেবা শুরু হবে, আর তাই এই পরীক্ষামূলক হেলিকপ্টার ওড়ানো হল।
উল্লেখ্য, পুরুলিয়া–বরাকর রাস্তার পুরুলিয়ার মফফসল থানার ছররায় রয়েছে এক পরিত্যক্ত বিমানবন্দর। যেখানে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কালে জ্বালানি ভরতে ওঠানামা করত বিমান। বামফ্রন্ট সরকার ২০০৩–০৪ সালে তা কার্যকর করার জন্য উদ্যোগী হলেও কিছুই করে উঠতে পারেনি। এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উদ্যোগে আশার আলো দেখছেন রাজ্যবাসী, শিল্পপতি এবং আধিকারিকরা।

Post a Comment

0 Comments