ads

সারা দেশে অঘোষিত সুপার এমার্জেন্সি চলছে, পাল্টা প্রতিক্রিয়া মমতার I UBG NEWS


ওয়েব ডেস্ক : রাজ্যের সব বুথকে অতি সংবেদনশীল ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানোর দাবি বিজেপির। কমিশনে এই দাবি জানিয়ে এসেছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। এর পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতে দেরি করলেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, সারা দেশে অঘোষিত সুপার এমার্জেন্সি চলছে। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গকে শান্তিপূর্ণ রাজ্য বলে ব্যাখ্যা করেন তিনি।

প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পরেই তৃণমূল প্রার্থীদের নিয়ে কালীঘাটে সাংবাদিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত কালই রাজ্যের ৪২টি আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী।
আজকের বৈঠকে ছিলেন অসমের বিভিন্ন কেন্দ্রে তৃণমূলপ্রার্থীরাও। দুপুর থেকেই দলীয় প্রার্থীদের নিয়ে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই সারা দেশে অঘোষিত ‘সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে বলে বিজেপিকে তোপ দাগেন তিনি।

এদিন নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়ে বাংলার সংবাদমাধ্যমের উপর নজরদারিরও দাবি জানান বিজেপির প্রতিনিধিরা৷ দাবি করেন, রাজ্য সরকারের চাপে স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারছে না বাংলার সংবাদমাধ্যম৷ ফলে নির্বাচনের সময় বাংলার সংবাদমাধ্যমের উপর নজরদারির জন্য অবজারভার নিয়োগ করা প্রয়োজন কমিশনের৷ গেরুয়া শিবিরের এই ধরনের অভিযোগেও ঘোরতর বিরোধিতা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বিজেপিকে কার্যত একহাত নিয়ে তিনি বলেন, ‘মিডিয়ার উপরও নজরদারি চালাতে বলেছে বিজেপি৷ শেম শেম শেম! জাতীয় সংবাদমাধ্যমের উপর ওরা নজরদারি চালায়, তা বলে বাংলাতেও এমন করবে৷ বিজেপি বিচারবুদ্ধি হারিয়ে ফেলেছে৷’ রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়েও বিজেপি যে প্রশ্ন তুলেছে, এদিন কড়া ভাষায় তার জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ জানালেন, পশ্চিমবঙ্গ দেশের সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ রাজ্য৷ এখানে সমস্ত উৎসব শান্তিতে পালিত হয়৷ এখানে আইন-শৃঙ্খলার কোনও ইস্যু নেই৷ বিজেপিকে খোঁচা দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পালটা বলেন, ‘চোরের মায়ের বড় গলা৷ গোরক্ষার নামে কত লোক খুন হয়েছে?’

বুধবারের সাংবাদিক সম্মেলনে আবারও কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিদায়ের ডাক দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যয়৷ জানান, এবার নয়াদিল্লির মসনদ থেকে মোদি-শাহকে ছুঁড়ে ফেলে দেবে দেশের মানুষ৷ দিল্লিতে তৈরি হবে জনগণের সরকার৷ বাংলায় বিয়াল্লিশে বিয়াল্লিশটা আসনই পাবে তৃণমূল৷ বুধবার কালীঘাটের বাড়িতে দলের সমস্ত প্রার্থীদের নিয়ে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এবারের লোকসভার ৪২ জন প্রার্থীকে পরস্পরের সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেন৷ সূত্রের খবর, বৈঠকে লোকসভার রণকৌশল ঠিক করে দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ যেহেতু তৃণমূলের মূল শত্রু বিজেপি৷ তাই কোন কোন ইস্যুতে বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে হবে, এদিন প্রার্থীদের তা বাতলে দেন মমতা৷ বিশেষ করে নতুন প্রার্থীদের দলীয় রীতি বুঝিয়ে দেন দলনেত্রী৷

রাজ্যের সমস্ত বুথকে অতি-স্পর্শকাতর ঘোষণা করতে বিজেপির দাবির তীব্র সমালোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শান্তিপূর্ণ রাজ্য হওয়া সত্ত্বেও অহেতুক পশ্চিমবঙ্গকে অপমান করতে চাইছে বিজেপি, এই অভিযোগ করেন তিনি।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৯৮ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজেপি জয়ী হলে কিছু হয় না। বেছে বেছে বাংলাকেই টার্গেট করা হয় অপমান করার জন্য। মোদী-অমিত শাহের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্যই এই আক্রমণ চলছে। কিন্তু আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। ওদের কোনও রাজনৈতিক দল বলেই মনে করি না।

Post a Comment

0 Comments