ads

কোনও প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা থাকলে তা জনপ্রিয় পেপার বা টিভিতে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানাতে হবে I UBG NEWS


ওয়েব ডেস্ক: লোকসভা ভোটে যাঁরা প্রার্থী হবেন, তাঁদের নামে যদি ফৌজদারি মামলা থাকে বা অতীতে কোনও মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে থাকেন, তাহলে তা খবরের কাগজ এবং টিভিতে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানাতে হবে। গত রবিবার সাংবাদিক বৈঠক করে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার সময় এই কথাও জানান মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সুনীল আরোরা। তিনি বারবার উল্লেখ করেন, এটা গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় উৎসব। তাই ভোট প্রক্রিয়া অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করাই তাঁর লক্ষ্য। সেই কারণে তিনি এই পদক্ষেপের কথা বলেন।
ভোট প্রক্রিয়া অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে একাধিক পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেন তিনি। তার মধ্যেই কমিশন জানিয়েছে, লোকসভা ভোটে যাঁরা প্রার্থী হবেন, তাঁদের নামে যদি ফৌজদারি মামলা থাকে বা অতীতে কোনও মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে থাকেন, তাহলে তা সংবাদ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে জানাতে হবে। এক দিন দিলেই হবে না। কমিশন নির্দিষ্ট করে বলে দিয়েছে, প্রচার পর্বে তিন দিন ওই বিজ্ঞাপন দিতে হবে।
বিজ্ঞাপনের চরিত্র কেমন হবে, তা নিয়ে স্পষ্টভাবে জানিয়েছে কমিশন। অর্থাৎ কোনো ছোট কাগজে বা লোকাল চ্যানেলে দায় সারলেই হবে না। কমিশন তার নির্দেশিকায় বলেছে, ‘ওয়াইডলি সার্কুলেটেড’ অর্থাৎ যে খবরের কাগজ অনেক মানুষ পড়েন বা যে টেলিভিশন চ্যানেল অনেক মানুষ দেখেন তেমন জায়গাতেই এই বিজ্ঞাপন দিতে হবে আলাদা তিনদিন।
এমনিতে প্রার্থী হতে গেলে নির্বাচন কমিশনের কাছে হলফনামা দিয়ে প্রার্থীর সম্পত্তির হিসেব-সহ মামলা-মোকদ্দমা নিয়ে সব তথ্য জানাতে হয়। কিন্তু এ বার কমিশন বিষয়টি তাতেই সীমাবদ্ধ রাখতে চাইছে না। ফৌজদারি মামলা রয়েছে এমন কেউ যদি লোকসভা ভোটে দাঁড়ান তাহলে অবশ্যই তাঁকে বিজ্ঞাপন দিতে হবে। এবং এই খরচ যুক্ত হবে প্রার্থীর নির্বাচনের খরচের মধ্যেই।
পর্যবেক্ষকদের মতে, হিন্দিবলয়ের ক্ষেত্রে এই ঘটনা সবচেয়ে বেশি। বিহার, ঝাড়খণ্ড, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তীসগড়ে যাঁরা প্রার্থী হন তাঁদের নামে ফৌজদারি মামলা নেই এমন খুঁজে পাওয়াই মুশকিল। সে যে দলই হোক না কেন। বাংলার ক্ষেত্রে এই ঘটনা  তুলনামূলক ভাবে কম।
কেন কমিশনের এই পদক্ষেপ? প্রাথমিকভাবে অপরাধে প্রবণতা ঠেকাতে ও অপরাধের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের আটকাতে এই পদক্ষেপ। শুধু তাই নয়, ভোটাররা যাতে প্রার্থীদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারেন, সেটাও কমিশনের লক্ষ্য।

Post a Comment