ads

রাফায়েল সংক্রান্ত নথিপত্র প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে চুরি হয়ে গিয়েছে, সুপ্রিমকোর্টে জানাল কেন্দ্র I UBG NEWS

ওয়েব ডেস্ক : সুপ্রিম কোর্টে রাফায়েল মামলার শুনানি চলাকালে সরকার বলেছে যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নথিপত্র চুরি হয়ে গিয়েছে। 

রাফালে যুদ্ধ বিমানের চুক্তি সম্পর্কিত সমস্ত নথি  চুরি গিয়েছিল প্রতিরক্ষামন্ত্রকের দপ্তর থেকে। বুধবার দেশের অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল এমনটাই দাবি করেন সুপ্রিম কোর্টে। সেই চুরি যাওয়া নথির ভিত্তিতেই সংবাদ মাধ্যমে ভুল খবর প্রকাশিত হয়েছিল বলেও দাবি করেন তিনি। 
গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর রাফাল যুদ্ধবিমান কেনা নিয়ে রায় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সেই রায় পুনর্বিবেচনার জন্য আর্জি জমা পড়েছিল শীর্ষ আদালতে। আবেদন করেছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা, অরুণ শৌরী ও আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ সেই মামলারই শুনানি শুরু হয় বুধবার। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বিচারপতি এসকে কৌল ও বিচারপতি কেএম জোসেফের বেঞ্চে ওঠে মামলাটি।

প্রথমদিনের শুনানিতে বিপক্ষের আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ একটি সর্ব ভারতীয় সংবাদ পত্রে প্রকাশিত খবরের উল্লেখ করে তিনি বলেন যে রাফালে নিয়ে বিস্তর দুর্নীতি করেছে সরকার এবং সেই সংক্রান্ত তথ্য আদালতে করা আগের মামলায় গোপন করে গিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরই অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল আদালতে নথি চুরি যাওয়ার দাবি করেন। এছাড়াও  এদিন আদালতকে জানান যে এটি খুবই স্পর্শকাতর বিষয়। দেশের সুরক্ষার বিষয় নিয়ে সরকারের তরফে কাজ করা হচ্ছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রক থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি চুরি গিয়েছে। সরকারি কর্মচারীরা এই কাজের সঙ্গে যুক্ত বলে মনে করা হচ্ছে।

কেন্দ্রের তরফে এই যুক্তি দেওয়ার পর প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ তাঁর কাছে জানতে চান যে এর জন্য সরকারি তরফে কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে? তার উত্তরে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন এই বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।
 
প্রসঙ্গত ফ্রান্সের দাঁসো নামে একটি সংস্থা থেকে ৩৬টি অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান কেনে ভারত সরকার। কিন্তু সেই বিমানের বরাত দেশীয় সংস্থা হ্যালকে দেওয়ার পরিবর্তে নিয়ম ভেঙে মোদী সরকার তা পাইয়ে দেয় অনিল আম্বানির সংস্থাকে। তারপরই দেশ জুড়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে। রাফালে সংক্রান্ত একের পর এক দুর্নীতি চলে আসে সামনে। আর তাতেই কোণঠাসা হতে থাকে মোদী সরকার।

Post a Comment

0 Comments