ads

বিজেপি–র সংকল্প যাত্রা মিছিলের নামে গেরুয়া–গুন্ডামি I UBG NEWS

নিউজ ডেস্কঃ  উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন কোনও রকম রাজনৈতিক র‌্যালির অনুমতি দেওয়া হয় না। প্রশাসনের এই  নির্দেশ অমান্য করেই জেলায় জেলায় বিজয় সঙ্কল্প যাত্রা করল বিজেপি। বিজেপির সঙ্কল্প যাত্রা ঘিরে সকাল থেকে উত্তেজনা ছড়াল রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। যার জেরে কোথাও কোথাও তা রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়। থানা ঘেরা, পুলিশের সঙ্গে ধস্তা ধস্তি, গাছ ফেলে রাস্তা অবরোধ- বাদ গেল না কিছুই।

কোচবিহার :  কোচবিহারের তুফানগঞ্জে ও শীতলকুচিতেও ধরা পড়ল এক ছবি। BJP-র বাইক র‍্যালি আটকে দেয় শীতলকুচি থানার পুলিশ। অপরদিকে কোচবিহারের চান্দামারিতে BJP-র বাইক র‍্যালিতে হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। গুরুতর জখম হয়ে দুই BJP কর্মী কোচবিহার সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। চান্দামারির পাশাপাশি দিনহাটা নিগমনগর ঘাটপাড় এলাকায় BJP-র র‍্যালিকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায়। একাধিক জায়গায় বাইক ভাঙচুর করার অভিযোগ তুলেছে BJP কর্মীরা। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব।
নদিয়া : নদিয়ার শান্তিপুর থানার ফুলিয়ায় কৃত্তিবাস মোড়ে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে BJP-র বাইক র‍্যালি আটকে দেয় পুলিশ। শান্তিপুর থানার পুলিশ বাধা দেয়। বাধা পেয়ে BJP -র কর্মী সমর্থকরা ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গে BJP কর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়। এক মহিলা নেত্রী সহ ৫ জন BJP কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শান্তিপুর থানার সামনে এরপর বিক্ষোভ দেখায় BJP কর্মী-সমর্থকরা।
আলিপুরদুয়ার :  আলিপুরদুয়ারে BJP-র বাইক মিছিল আটকে ১০০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আটক করা হয়েছে ২৫টি মোটরবাইক। জেলার বিভিন্ন ব্লকে BJP-র বাইক মিছিল আটকে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে।  আলিপুরদুয়ার জেলা BJP-র দপ্তর থেকে BJP-র আলিপুরদুয়ার জেলার সাংগঠনিক সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মার নেতৃত্বে আজ মিছিল বের হয়। বাবুপাড়ায় মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। এর প্রতিবাদে আলিপুরদুয়ার চৌপথি অবরোধ করে BJP কর্মীরা। তারপর আলিপুরদুয়ার থেকে পুলিশ এসে গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা সহ ১০০ জনকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। BJP-র অভিযোগ, পুলিশ জেলার প্রতিটি ব্লকে বাইক র‍্যালি আটকে দিয়েছে।
জলপাইগুড়ি : জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জ ব্লকের বেলাকোবা থেকে আজ BJP-র বাইক মিছিলটি শুরু হয়। মিছিলে তৃণমূল কংগ্রেসের লোকজন হামলা চালায় বলে অভিযোগ। BJP কর্মীদের মারধর করা হয়। জখম হয় একাধিক BJP কর্মী। হামলার পর কয়েকজন BJP কর্মী নিখোঁজ। BJP নেতাদের অভিযোগ, তৃণমূল নেতা কৃষ্ণ দাসের নেতৃত্বে হামলা হয়।
তবে ধূপগুড়িতে আজ BJP-র বাইক র‍্যালি নিয়ে কোনও গন্ডগোল হয়নি। মিলপাড়া এলাকা থেকে শুরু হয় বাইক র‍্যালি। দমকল কেন্দ্রের সামনে ব়্যালিটি আটকে দেয় পুলিশ। ময়নাগুড়িতেও র‍্যালি আটকায় পুলিশ। সেখানেও কোনও গোলমাল হয়নি।
পশ্চিম বর্ধমান: BJP-র রাজ্যব্যাপী কর্মসূচি অনুযায়ী আজ রানিগঞ্জের রেলস্টেশন থেকে রাজবাড়ি নজরুল স্ট্যাচু পর্যন্ত বাইক মিছিল হওয়ার কথা ছিল। তবে মিছিল শুরু হওয়ার সাথে সাথেই রানিগঞ্জ থানার পুলিশ তা আটকে দেয়। BJP কর্মীরা পায়ে হেঁটে মিছিল করে স্ট্যাচুর সামনে পৌঁছে ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য মোতায়েন করা হয় পুলিশ। জোর করে অবরোধ তুলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।
আসানসোল : আসানসোলেও BJP-র বাইক মিছিল আটকাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি বেধে যায় BJP-র কর্মী ও সমর্থকদের। পুলিশ পালটা লাঠিচার্জ করে। মাথায় লাঠির বাড়ি খেয়ে জখম হন আসানসোল উত্তর থানার OC শান্তনু অধিকারী। আজ দুপুরে বারাবনির নুনি এলাকা থেকে বাবুল সুপ্রিয়র নেতৃত্বে বাইক র‍্যালি শুরু হয়। গৌরান্ডি আসানসোল রোড ধরে বাইক র‍্যালি শুরু হয়। বারাবনির আমডিহা মোড়ে র‍্যালি পৌঁছলে পুলিশ আটকায়। এরপর পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ।
পুরুলিয়া: পুরুলিয়াতেও BJP-র 'বিজয় সংকল্প' মিছিলকে বাধা দেয় পুলিশ। পুরুলিয়া শহরে ঢোকার মুখেই আটকে দেওয়া হয় মিছিলটি। কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেওয়া BJP নেতা বাপ্পা চ্যাটার্জি বলেন, "আমাদের যেকোনও কর্মসূচিতেই পুলিশ বাধা দেয়। শাসকদলের হয়ে কাজ করে পুলিশ। এই কর্মসূচির আগাম অনুমোদন নিলেও অযথা আমাদের হয়রানি করছে পুলিশ।" শহরে ঢোকার মুখে উড়ালপুলের শেষ প্রান্তে পুলিশ ব্যারিকেড করে বাধা দেয় তাদের। ঘটনায় বাঁকুড়া-পুরুলিয়া ৬০ (এ) জাতীয় সড়কে যানবাহন চলাচল প্রায় ঘণ্টাখানেকের জন্য বন্ধ হয়ে পড়ে।
উত্তর ২৪ পরগনা: বারাসত থেকে 'বিজয় সংকল্প' মিছিল শুরু হওয়ার সময় বারাসত থানার IC দীপঙ্কর ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে পুলিশ সেখানে হাজির হয়। বিনা অনুমতিতে বাইক মিছিল করা যাবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। দলীয় কর্মসূচিতে এসেও ফিরে যেতে বাধ্য হয় BJP-র সমর্থকরা। BJP-র বারাসত সাংগঠনিক জেলার সহসভাপতি শংকর দাস বলেন, "পুলিশ বাইক মিছিলের অনুমতি না দেওয়ায় আমরা এই কর্মসূচি বাতিল করেছি। পুলিশ আমাদের কিছু বিধিনিষেধের কথাও বলে। তা সত্ত্বেও আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বাইক মিছিল করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ তা করতে দেয়নি।"
মুর্শিদাবাদ: বহরমপুরে দেখা গেল অন্য ছবি। BJP কর্মীদের সামনে পুলিশের বাধা ধোপে টিকল না। গেল না মিছিল আটকানো। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির পরও শহরে মিছিল বার করে রাজ্য সরকার ও পুলিশকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল BJP-র কার্যকর্তারা। পুলিশের বাধায় সাময়িকভাবে মিছিলে প্রভাব পড়লেও পুলিশের বাধা অগ্রাহ্য করে মিছিল করে তারা।
হুগলি: হুগলির তারকেশ্বর, খানাকুল ও আরামবাগে BJP-র পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী সকাল ১০টা নাগাদ বাইক মিছিল শুরু করে BJP কর্মী সমর্থরা। মিছিল শুরুর সাথে সাথেই পুলিশ আটকে দেয়। তারপরই রাস্তা অবরোধ করে তারা। পুলিশ এবং শাসকদলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে বাইক মিছিল আটকানোর অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে BJP সমর্থকরা। তারকেশ্বর BJP সম্পাদক জগন্নাথ দাস বলেন, "প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে শাসকদল চক্রান্ত করে BJP-কে রুখতে চাইছে। তাই আমাদের আজকের ঘোষিত বাইক মিছিলকে পুলিশ দিয়ে আটকাবার চেষ্টা করছে।"
শিলিগুড়ি: আজ সকাল থেকেই শিলিগুড়ির বিভিন্ন এলাকায় বাইক আটকে তল্লাশি শুরু হয়। BJP-র পতাকা লাগিয়ে পথে নামা বাইক চালকদের আটক করতে শুরু করে পুলিশ। শিলিগুড়ি ছাড়াও মাটিগাড়া, নকশালবাড়ি, ঘোষপুকুরেও বিভিন্ন রাস্তায় ব্যারিকেড করে তল্লাশি চলে। সকালে শিলিগুড়ির হাকিমপাড়ায় জমায়েত হতে শুরু করে BJP কর্মীরা। হাজির হয় পুলিশ। বাদানুবাদের পর BJP-র শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি অভিজিৎ রায় চৌধুরিসহ দলীয় কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হয়।
গোয়ালতোড়:‌ বিজেপি–র সংকল্প যাত্রা ঘিরে ধুন্ধুমার কাণ্ড পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড়ে। বিজেপি কর্মীদের ছোঁড়া ইঁটের ঘায়ে ৫ পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। পুলিশ পাল্টা লাঠিচার্জ করে। গোয়ালতোড় বাজারে মিছিল পৌঁছনোর পরই পুলিশ মিছিল আটকে দেয়। অনুমতি দেখতে চাওয়া হয়। এ নিয়ে বাদানুবাদ চলার সময় কিছু বিজেপি কর্মী ইঁট ছুঁড়তে থাকেন। 
রানিগঞ্জ:‌ নেতাজি সুভাষ রোডে বিজেপি–র ‘‌বিজয় সংকল্প’‌ বাইক মিছিলকে আটকে দেয় প্রশাসন। প্রতিবাদে বিজেপি কর্মীরা ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন৷ তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়৷ বারাবনিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র বাইক মিছিল আটকালে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়৷ পুলিশ মৃদু লাঠি চার্জ করে৷
দুর্গাপুর:‌ রবিবার সকালে বিজেপি–র বাইক র‌্যালিকে ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল ইস্পাতনগরীতে। চিত্রালয় মেলা ময়দানে এদিন বিজেপির সংকল্প যাত্রা উপলক্ষে বাইক র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছিল। অনুমতি না থাকায় পুলিশ এই র‌্যালিতে বাধা দিলে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে বচসা শুরু হয়। 
সিউড়ি:‌ মিছিল ঘিরে বীরভূম জেলা জুড়ে উত্তেজনা ছড়ায়। মিছিল আটকাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিও বেধে যায়। সব থেকে বেশি উত্তেজনা ছড়ায় সিউড়ি এবং মল্লারপুরে। সিউড়ির চৈতালি মোড়ের কাছে পুলিশ বিজেপি–র বাইক মিছিল আটকালে রীতিমতো বচসা বাধে। বাজেয়াপ্ত করা হয় ৩০–৩৫টি বাইক। 
পূর্ব মেদিনীপুর:‌ বিজেপি–র বাইক মিছিল এগোতে চাইলে বাধা দেয় পুলিশ। আচমকা পুলিশের বিরুদ্ধে স্লোগান তুলে অশান্তিতে জড়িয়ে পড়লেন নেতা–কর্মীরা। জেলার দিঘা, রামনগর, পটাশপুর, কঁাথিতে রবিবার এভাবেই গোলমাল করে গ্রেপ্তার হন বিজেপি–র অনেক নেতাকর্মী। 
পূর্ব বর্ধমান:‌ অনুমতি ছাড়া বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে বাইক যাত্রা বেরলে আটকে দেয় পুলিশ। এর জেরে পুলিশের সঙ্গে তুমুল ধস্তাধস্তি হয় বিজেপি নেতা–কর্মীদের। বিজেপি–র কার্যালয় থেকে বাইক যাত্রা জাতীয় সড়ক ধরে যাওয়ার সময় উত্তেজনা ছড়ায়।
মন্তেশ্বর:‌ বিজেপি–র বিজয় সঙ্কল্প যাত্রাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল মন্তেশ্বরে। অনুমতি না নিয়ে বাইক মিছিল করা ও গাড়ির কাগজপত্র ঠিকঠাক না থাকার অভিযোগে পুলিশ ১০টি বাইক আটক করে। নাদনঘাট থানা এলাকায়ও উত্তেজনা ছড়ালে পুলিশ দুই বিজেপি কর্মীকে আটক করে।

Post a Comment

0 Comments