ads

উত্তর-পূর্বের নিরাপত্তা বৃদ্ধির তাগিদে বাংলায় হচ্ছে ব্রাহ্মোসের ঘাঁটি | UBG NEWS

UBG NEWS, দুর্গাপুর : পুলওয়ামায় সিআরপিএফের কনভয়ে জঙ্গিহানার জেরে দেশের পশ্চিম সীমান্তে যেভাবে যুদ্ধের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে তার জেরে দেশের পূর্বাঞ্চলেও এবার নিরাপত্তা নিয়ে বাড়তি নজর দিতে শুরু করল দেশের সেনাবাহিনী। বিশেষ করে চীন সীমান্ত লাগোয়া উত্তর-পূর্ব ভারতের নিরাপত্তা জোরদার করতে এবার ব্রাহ্মোস মিসাইলের ঘাঁটি নিয়ে তাৎপর্য পূর্ণ এক পদক্ষেপ নিল দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রক। জানা গিয়েছে, ঝাড়খন্ডের রাঁচি থেকে ব্রাহ্মোস ক্ষেপনাস্ত্রের ঘাঁটি সরিয়ে নিয়ে আসা হচ্ছে বাংলার বুকে। এ রাজ্যের পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুর্গাপুর মহকুমার কাঁকসা ব্লকের পানাগড়ে ভারতীয় সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনীর ঘাঁটি রয়েছে সেখানে মোতায়েন করা হচ্ছে ব্রাহ্মোস উইংসকে। রাঁচির তুলনায় পানাগড় উত্তর-পূর্ব ভারতের কাছে। তাছাড়া পানাগড়ে আগেই হারকিউলিস বিমানের ঘাঁটি গড়ে তোলা হয়েছে। তাই সব দিক দিয়ে নজর রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে প্রতিরক্ষামন্ত্রক সুত্রে জানা গিয়েছে।

বুধবার পানাগড়ের সেনা ঘাঁটি পরিদর্শনে আসেন ভারতীয় সেনাবাহীনির মুখ্য জেনারেল পুর্বাঞ্চল কমান্ডার মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। তিনি পানাগড়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সামরিক বাহিনীকে যে কোন পরিস্থিতির জন্য সর্বদা তৈরি থাকার পরামর্শ দেন ও তার প্রয়োজনীয়তা বর্ণন করেন। এরপর সেনাধ্যক্ষ সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথোপকথন করেন ও পানাগড় সামরিক ঘাঁটিকে শক্তিশালী করে তোলার পেছনে তাদের অতন্দ্র প্রচেষ্টা ও অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করেন। ভারতীয় সেনার প্রথম পর্বত স্ট্রাইক কর্পস যা অতি দ্রুত প্রতিক্রিয়া বাহীনি হিসাবে চীন সীমান্তবর্তী আক্রমনাত্মক শক্তি হিসাবে নির্মিত হয়েছে তার ঘাঁটিও গড়ে তোলা হচ্ছে পানাগড়ে। গত কয়েক বছর ধরে পানাগড় বায়ুসেনা ঘাঁটি ও পদাতিক সেনা ঘাঁটির ওপর বিশেষ গুরুত্ব বাড়ানো হয়েছে। এবার ব্রাহ্মোস ইউনিটও রাঁচি থেকে পানাগড় প্রতিস্থাপিত করার মধ্যে দিয়েই পাক মিত্র চীনকেও পরোক্ষ বার্তা দেওয়া হল বলে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

Post a Comment

0 Comments