ads

তুফানগঞ্জে মাটি খুঁড়তেই মিললো রাজ আমলের নিদর্শন | UBG NEWS

UBG NEWS, তুফানগঞ্জ : তুফানগঞ্জ ১ নং ব্লকের অন্দরান ফুলবাড়ি-২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের সাহাপাড়া এলাকায় মন্দির তৈরির জন্য মাটি খুঁড়তে গিয়ে উদ্ধার হল রাজ আমলের বেশ কিছু নিদর্শন।

জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে ওই এলাকার পরিমল সাহা-র বাড়িতে মন্দির তৈরির জন্য মাটি খুঁড়ছিলেন কয়েকজন শ্রমিক। সেই সময়ই মাটির নিচে কোনও শক্ত জিনিস রয়েছে বলে অনুভব করেন শ্রমিকেরা। এরপরই কিছুটা খুঁড়তেই মাটির নিচ থেকে বেশ কিছু ইট ও একটি পোড়া মাটির পদ্মফুল উদ্ধার করেন কর্তব্যরত শ্রমিকেরা। উদ্ধার হওয়া ইটের একটির উপর ঘোড়ার নালের ছবি ছিল বলে সূত্রের খবর। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই উদ্ধার হওয়া সামগ্রী দেখতে ভিড় জমান স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান জেলাশাসক কৌশিক সাহা-সহ অন্যান্য আধিকারিকরা। জেলাশাসকের উদ্যোগে সামগ্রীগুলিকে আপাতত স্থানীয় পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

জেলাশাসক কৌশিক সাহা জানিয়েছেন, এই সামগ্রীগুলিকে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের হাতে তুলে দেওয়া হবে। ঘটনার জেরে আপাতত বন্ধ রয়েছে খননকার্য।

এবিষয়ে এলাকার প্রবীণ নাগরিকরা বলেন, "ওই গ্রামের দুই কিলোমিটার দূরে বীর যোদ্ধা চিলা রায়ের গড় এবং দুর্গ ছিল। রাজা নরনারায়ণের ভাই এবং সেনাপতি ছিলেন চিলা রায়। তিনি এখানে বিশাল আকারের দুর্গ নির্মাণ করেছিলেন। এটি চিলা রায়ের গড় নামে পরিচিত ছিল। চিলা রায় ধর্মগুরু শংকরাদেব ও রাজা নরনারায়ণকে রক্ষা করার জন্য দুর্গটি নির্মাণ করেছিলেন। পরে তিনি দুর্গটি সেনাবাহিনীদের রাখার জন্য ব্যবহার করেন।

এবিষয়ে পরিমল সাহার বাড়ির সদস্যরা বলেন, "তিনদিন আগে একটি শিবমন্দির নির্মাণ করার জন্য আমরা মাটি খোঁড়ার কাজ শুরু করি। এরপর মাটির নিচে থেকে পুরোনো দিনের অনেক নিদর্শন উদ্ধার হয়। গতকাল আবার মাটি খোঁড়ার কাজ শুরু করলে রাজ আমলের নানা নিদর্শন বেরিয়ে আসে।"

ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা এবিষয়ে বলেন, "সম্ভবত, ভূমিকম্পের ফলে ওই গড় ও দুর্গ মাটির নিচে চাপা পড়ে যায়। পুরাতত্ত্ববিদরা খনন কার্য চালিয়ে পুরোনো নির্দশনগুলি উদ্ধার করুক।"

Post a Comment

0 Comments