ads

বায়ুসেনার অভিযানকে কাজে লাগিয়ে কি ভোটের প্রচার শুরু করে দিলেন মোদী? | UBG NEWS

UBG NEWS, ওয়েব ডেস্ক : ‘যুদ্ধকে’ যাতে নির্বাচনী হাতিয়ার না করা হয়, সেই ব্যাপারে বিরোধী তো বটেই, শরিক শিবসেনাও বিজেপিকে বার বার সতর্ক করেছে। কিন্তু ভোটের প্রচারে এই ব্যাপারটিকেই অস্ত্র করলেন মোদী। এমনই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

মঙ্গলবার রাজস্থানের চুরুতে একটি জনসভা করেন নরেন্দ্র মোদী। সেখানে বায়ুসেনার এই হামলার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, “দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই, ভারত নিরাপদ হাতেই রয়েছে।” এই বক্তব্যটি মোদী নিরাপত্তাবাহিনীর প্রসঙ্গে বললেন, না কি নিজের শাসনকালের প্রসঙ্গে বললেন, সে প্রশ্ন তুলছে বিরোধীরা।

যদিও তাঁর ভাষণের শেষ প্রান্তে পৌঁছে সুকৌশলে রাজনৈতিক বার্তা দিতে আর কোনো রাখঢাক করেননি মোদী। “যে সক্ষমতা ভারত আজ দেখাতে পারছে, তা কার শক্তিতে দেখাতে পারছে?” জমায়েতের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে দেন মোদী। সব প্রান্ত থেকেই জবাব আসে ‘মোদী, মোদী’। কিন্তু সে জবাব সংশোধন করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘মোদীর শক্তিতে নয়, আপনাদের একটা ভোটের শক্তিতে এটা সম্ভব হয়েছে।’’ তিনি বলেন, ‘‘২০১৪ সালে আপনাদের ভোট একটা মজবুত সরকার বানিয়েছিল কেন্দ্রে। সেই সরকারের দম আজ গোটা বিশ্ব দেখছে।”

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোর রাতে জইশের বৃহত্তম ঘাঁটিটি ভারতীয় বায়ুসেনা গুঁড়িয়ে দেওয়ার পরে এটাই ছিল নরেন্দ্র মোদীর প্রথম বার্তা।

অভিযান শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রধানমন্ত্রীকে বিশদ রিপোর্ট দেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। সকালে নিরাপত্তা বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটির বৈঠক বসে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে। সেই বৈঠক শেষের পর অনেক মন্ত্রী মুখ খুললেও মোদী কিছু বলেননি। তিনি মুখ খুললেন চুরুর এই জনসভায়।

সরকারি ভাবে পাকিস্তানে হামলা চালানোর কথা মোদী একবারও না বললেও, তিনি বলেন, ‘‘আজ এমন একটা মুহূর্ত যে, আসুন আমরা সবাই ভারতের পরাক্রমী বীরদের প্রণাম জানাই।’’

এর পর দেশ নিরাপদ হাতে রয়েছে, এই মন্তব্য করে মোদী বলেন, ‘‘এই মাটির দিব্যি, আমি দেশকে ধ্বংস হতে দেব না, আমি দেশকে থামতে দেব না, আমি দেশকে নত হতে দেব না।’’

উল্লেখ্য, সোমবার দিল্লিতে ওয়ার মেমোরিয়াল উদ্বোধনে গিয়েও রাজনৈতিক বার্তা দিয়েছিলেন মোদী। তার জেরে বিভিন্ন জায়গায় তিনি সমালোচিত হন। এমনকি প্রাক্তন সেনাকর্মীরাও তাঁর সমালোচনায় সরব হন। কিন্তু এ দিন চুরুতে গিয়ে তিনি যা করলেন, তার পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীরা কী করে, সেটাই দেখার।

Post a Comment

0 Comments