ads

দেশে যুদ্ধের পরিস্থিতি, নর্থ ব্লকে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা

ওয়েব ডেস্কঃ  ভারত-পাক উত্তেজনা নিয়ে নর্থ ব্লকে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক ডাকলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে হাজির হয়েছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল৷ ডেকে পাঠানো হয়েছে সিআরপিএফ, বিএসএফের ডিজিকে৷ জাতীয় নিরাপত্তা নিয়ে এদিনের বৈঠকে আলোচনা হবে বলে জানা যাচ্ছে৷
এদিন সকালে ভারতীয় সেনাবাহিনী, বায়ু ও নৌবাহিনীর সঙ্গেও বৈঠক করা হয়৷ পাক যুদ্ধ বিমান নিয়ন্ত্রণরেখার এপারে চলে আসে৷ ফেলা হয় বোমাও৷ কড়া জবাব দেয় ভারতও৷ এই পরিস্থিতিতে দেশের নিরাপত্তা কী হবে? কোন পর্যায়ে রয়েছে সীমান্তের পরিস্থিতি? তা জানতেই এই পর্যালোচনা বৈঠক৷অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনেও চলছে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক৷ দেশের বর্তমান পরিস্থিতি, আন্তর্জাতি পরিষরে বিষয়টিকে কীভাবে পেশ করবে ভারত তা নিয়ে আলোচনা হতে পারে৷ এদিনই সকালে রাশিয়া ও চিনের বিদেশমন্ত্রীদের সঙ্গেও বৈঠক করেন ভারতীয় বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷
মঙ্গলবার ভারতীয় সেনার এয়ারস্ট্রাইকের পর সেদিনই পাকসেনা ক্যাম্প গুঁড়িয়ে সেনা-জওয়ানরা৷ ভারতের একের পর এক প্রত্যাঘাতে চাপে পড়ে একঘরে পাকিস্তান৷ চরম সমালোচনার মুখে৷ আর এই পরিস্থিতি থেকে বেরোতে যে পাকিস্তান মরিয়া হয়ে উঠবে তেমনটাই মনে করা হচ্ছে৷ সেক্ষেত্রে পাকিস্তানের যে কোনও ছক বানচাল করে দিতে বদ্ধপরিকর ভারতীয় সেনাবাহিনী সবদিক থেকে প্রস্তুত সেই বার্তা ইতিমধ্যেই তুলে ধরেছে৷
প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার এয়ার স্ট্রাইকের পর দেশের সেনাকর্তা ও গোয়েন্দা আধিকারিকদের সঙ্গে কথা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। প্রত্যেকেই আশ্বাস দিয়েছেন যে তাঁরা যে কোনও ধরনের পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত।
সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত, বায়ুসেনা প্রধান বিএস ধানোয়া ও নৌসেনা প্রধান সুনীল লাংবার সঙ্গে কথা হয়েছে মোদীর। তাঁরা প্রত্যেকেই বলেছেন, ইসলামাবাদ যদি কোনও পাল্টা হামলার চেষ্টা করে তা রুখে দেওয়ার জন্য প্রত্যেকটা বাহিনীর জওয়ানরাই প্রস্তুত আছে।
বায়ুসেনার হামলার কয়েক ঘণ্টার পর পাকিস্তান আর্মির মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটে লেখেন, ‘ভারতীয় বায়ুসেনা নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করে হামলা চালিয়েছে৷ ভারতীয় বায়ু সেনার বিমানগুলো ফিরে গিয়েছে৷ তবে পাকিস্তান এয়ার ফোর্সও জবাব দেবে৷’

Post a Comment

0 Comments