ads

একটি অংশের রাজনৈতিক দল এবং সংগঠন ঘৃণা ছড়াচ্ছে, আরএসএস-এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থার নির্দেশ মমতার I UBG NEWS

নিউজ ডেস্ক :  নিজেদের “ভয়ঙ্কর মতামতে”র মাধ্যমে গুজব এবং ঘৃণা ছড়াচ্ছে রাজনৈতিক দল এবং সংগঠনের একটি অংশ, বুধবার এমনই মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
ট্যুইটে তিনি লেখেন, “রাজনৈতিক দল/সংগঠনের একটি অংশ এবং সাংবিধানিক পদে থাকা ব্যক্তিরা তাঁদের ভয়ঙ্কর মতামতের মাধ্যমে গুজব, ঘৃণা ছড়াচ্ছেন”।
তিনি বলেন, “এমনকী সাংবাদিকদেরও ছাড়া হচ্ছে না।এটা নির্লজ্জ রাজনীতি।নোংরা রাজনীতি আমাদের কোন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে”।
১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের কনভয়ে হামলা চালায় জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিরা, শহিদ হন ৪০ জন জওয়ান। 
দেশপ্রেম হোক কিংবা শিশুচুরি- যে কোন গুজব বা প্ররোচনা থেকেই রাজ্যবাসীকে দূরে থাকার আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পর পর বেশ কিছু ঘটনায় উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর প্রশাসনকে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি৷ সেই সঙ্গে  সাধারণ মানুষকে প্ররোচনা এড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। সোমবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে আরএসএস-বিজেপি-বিশ্বহিন্দু পরিষদকে কাঠগড়ায় তুলে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, প্ররোচনা দিয়ে ইচ্ছে করে দাঙ্গা বাধানোর চেষ্টা করছে। এটা একটা গেমপ্ল্যান। শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষের কাছে অনুরোধ, আমরা যেন এই প্ররোচনায় পা না-দিই। আমরা যেন নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি না করি।’
১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের কনভয়ে হামলা চালায় জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিরা, শহিদ হন ৪০ জন জওয়ান। 
সোমবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশ্ন, পাঠানকোট, উরি হামলার সময় এমন গণ উন্মাদনা দেখা গেল না কেন? কেন সেই সময় এখনকার মতো সরব ছিলেন না মোদী, অমিত শাহ? তাঁর মতে, দেশে একটা গণ উন্মাদনা তৈরি করা হয়েছে। এই গণ উন্মাদনা দিয়ে রাজ্যে দাঙ্গা বাধানোর উসকানিও দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন মমতা। তিনি জানিয়েছেন, যারা ধর্মীয় উসকানি, ফেক নিউজ, জাতি বিদ্বেষ ছড়ানোর চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

Post a Comment

0 Comments