ads

মোদি ‘প্রাইম টাইম মিনিস্টার’ এবং তার সরকার ‘ফটোশুট সরকার’, কটাক্ষ রাহুলের I UBG NEWS

ওয়েব ডেস্ক : মোদিকে ‘প্রাইম টাইম মিনিস্টার’ বলে কটাক্ষ করলেন রাহুল গান্ধী। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া পুলওয়ামা ঘটনা প্রসঙ্গে সরকারের ব্যর্থতাকে ব্যঙ্গ করে তিনি বলেন মোদি সরকার ‘ফটোশুট সরকার’। নিজের টুইটার পোস্টে কংগ্রেসের সুপ্রিমো রাহুল গান্ধী এই মন্তব্য করেন।
তিনি আরও লেখেন, ‘দেশের শহিদ জওয়ানদের পরিবার যখন শোকের সাগরে ডুবে ছিলেন তখন প্রধানমন্ত্রী হাসতে হাসতে নদীতে শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন।’
তিনি আরও বলেন, পুলওয়ামা ঘটনায় গোটা দেশ যখন শোকে স্তব্ধ, তখন মোদি তার রাজধর্ম পালন করেননি। তিনি সেনা মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরেও অনেকক্ষন ধরে করবেট ন্যাশনাল পার্কে শুটিং এ ব্যস্ত ছিলেন। শুধু তাই নয় সেনার দেহ আনার একঘন্টা পরে তিনি সেখানে উপস্থিত হন। এই ঘটনার উল্লেখ করে গতকালই মোদিকে একহাত নিয়েছিলেন কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালার ।
গোটা দেশের তখন খাবার খাওয়ার ইচ্ছেই নষ্ট হয়ে গিয়েছিল, অথচ প্রধানমন্ত্রী সন্ধেবেলায় সময় চা, সিঙাড়া খাচ্ছিলেন। পুরোপুরি লজ্জাজনক। যখন গোটা দেশ দুঃখপ্রকাশ করছিল, তখন প্রধানমন্ত্রী শুটিং করছিলেন, আর কোথাও পাবেন এমন প্রধানমন্ত্রী?” এ বিষয়ে প্রমাণ হিসেবে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলির রিপোর্টকে তুলে ধরেন কংগ্রেস মুখপাত্র। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলিতে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ওই দিন সন্ধে পর্যন্ত জিম করবেট ন্যাশনাল পার্কে ‘ডিসকভারি’ চ্যানেলের জন্য একটি ডকুমেন্টরি শুট করছিলেন। সুরজেওয়ালার কটাক্ষ, “প্রধানমন্ত্রী নিজেকে কুমিরদের মধ্যে জনপ্রিয় করে তোলার চেষ্টা করছিলেন।”
তিনি বলেন, সেনা কনভয়ে হামলা হয়েছে দুপুর ৩:১০ এ,কিন্তু সেই খবর পাওয়ার পরও সন্ধ্যা ৬:৪০ পর্যন্ত তথ্যচিত্র শুটিং নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন মোদি । জওয়ানদের মৃত্যুর খবরে শোকে যখন গোটা দেশ মুহ্যমান, তখন সার্কিট হাউসে আরাম করছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এমনকী দিল্লিতে শহিদদের দেহ আনা হয় তখনও সেখানে একঘন্টা দেরিতে যান প্রধানমন্ত্রী, এই ধরনের আচরণ গ্রহণযোগ্য নয়। পাশাপাশি গোয়েন্দা হুঁশিয়ারি থাকলেও কেন তাকে গুরুত্ব দেওয়া হল না সেই প্রশ্নও তুলেছে কংগ্রেস।
এমন বিস্ফোরক অভিযোগ জাতীয় রাজনীতি তোলপাড় হওয়ার পর এদিন মাইক্রোব্লগিং সাইটে বোমা ফাটান রাহুল গান্ধী। আসরে নেমে টুইট করেন তিনি। টুইটে লেখেন, ‘পুলওয়ামায় জওয়ানদের মৃত্যুর খবর জেনে তিন ঘণ্টা পরও ফিল্মের শুটিং করছিলেন প্রাইম টাইম মিনিস্টার। দেশের শহিদ জওয়ানদের পরিবার যখন শোকের সাগরে ডুবে ছিলেন তখন প্রধানমন্ত্রী হাসতে হাসতে নদীতে শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন।’ একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ শানিয়েছেন বসপা সুপ্রিমো মায়াবতীও। টুইট করেছেন, ‘সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা ও নিজের বুকে আগুন জ্বলছে জুমলেবাজি করে কর্তব্য থেকে পালানোর চেষ্টা করছেন প্রধানমন্ত্রী।’

Post a Comment

0 Comments