‘যো হমারে সাথ লড়েগা ও চুর চুর হো জায়েগা’, চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন মমতা। UBG NEWS

UBG NEWS , রায়গঞ্জ: রাত পোহালেই রাজ্যে প্রথম দফা নির্বাচন৷ প্রথমদফা নির্বাচন হবে আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে৷ তার আগে উত্তর দিনাজপুরের চোপড়ায় দার্জিলিং-এর তৃণমূল প্রার্থী অমর সিং রাইকে বিপুল ভোট়ে জয়ী করার জন্য জনগণের কাছে আহ্বান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ একদিন আগেই রায়গঞ্জে কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে প্রচারে এসে মোদীকে ‘চৌকিদার ঝুঠা হ্যায়, লুঠেরা হ্যায়’ এই বাক্যবাণেই প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধতে দেখা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীকে৷

আর বুধবার, ‘যো হমারে সাথ লড়েগা ও চুর চুর হো জায়েগা’ এমনই চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে বিরোধীদের উদ্দেশ্যে৷ মোদীর আচ্ছে দিনের জন্য নয়, জনগণের সাচ্চে দিনের জন্য তৃণমূলের হাত শক্ত করার জন্য বারে বারে সাধারণ মানুষের কাছে আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী৷ অমর সিং রাইয়ের প্রসঙ্গে মমতার বক্তব্য, উনি পাহাড়ের লোক, বাইরে থেকে আসেননি৷ এরপরেই মোদীকে খোঁচা দিয়ে মমতা বলেন, কিছু লোক ভোটের সময় দিল্লি থেকে চলে আসে, ভোট ফুরোলেই আর তাদের দেখা যায় না৷ দার্জিলিং-এর বিদায়ী সাংসদ তথা বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সুরেন্দ্র সিং আলুওয়ালিয়া প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জনগণের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, আপনারা আলুওয়ালিয়াকে জিতিয়েছিলেন, কিন্তু কোনওদিন তাঁকে দেখতে পেয়েছেন৷ সিপিএম ও কংগ্রেস প্রসঙ্গেও মুখ্যমন্ত্রী একই প্রশ্ন রাখেন সকলের কাছে৷ সিপিএম, কংগ্রেস ও বিজেপিকে এক সারিত রেখে বিঁধেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

বলেন, এরা তিনজনই এক৷ নির্বাচন এসেছে তাই এদের দেখা যাচ্ছে৷ এদিন আরও একবার মোদীকে আক্রমণ করে মমতার উক্তি, নির্বাচনের পর চৌকিদারের চৌকি হ্যাঙ্গারে ঢুকে যাবে৷ মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মোদী ষাড়ে চার বছর ধরে বিদেশে ঘুরে বেড়িয়েছে৷ দেশের দিকে নজরই দেননি৷ নোটবন্দি, ব্যবসা, বেকারত্ব সবকিছুর জন্যই এদিন মোদীকেই কাঠগড়ায় তোলেন দিদি৷

মুখ্যমন্ত্রী জানান, কংগ্রেস ভোট পেলে বিজেপি শক্তিশালী হবে, সিপিএম বিজেপির বন্ধু৷ কংগ্রেসও বিজেপির বন্ধু তাই তৃণমূলকে ভোট দিন৷ আমাদের সঙ্গে যে লড়বে সে ধ্বংস হয়ে যাবে৷ এদিন জনগণের উদ্দেশ্যে এদিন আরও একবার দিল্লির সরকারকে বদলে দেওয়ার জন্য সুর চড়ান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এদিন বন্ধু বলে সম্মোধন করেন দিদি৷ তবে এদিন কেন্দ্রীয় বাহিনীকে প্ররোচিত করার জন্য বিজেপিকেও কাঠগড়ায় তোলেন তুলতে ছাড়েননি তিনি৷ কটাক্ষ করে তিনি বলেন, বিজেপিকে বড় রসোগোল্লা আর সিপিএম ও কংগ্রেসকে একটা রাজভোগ দিয়ে দিয়ে দেওয়া হবে৷