“বুথে ঢুকে ছাপ্পা ভোট দিয়ে দেবেন, ভোট যেভাবেই হোক তৃণমূলে পড়তে হবে”- অডিও ক্লিপিং-এ উত্তাল কোচবিহার | UBG NEWS

UBG NEWS, কোচবিহার : আগামীকালই কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারে প্রথম দফার লোকসভা নির্বাচন। কিন্তু ভোটের কয়েক ঘণ্টা আগেই ফাঁস হল একটি বিস্ফোরক অডিও ক্লিপিং। যা নিয়ে কমিশনের কাছে যাচ্ছে বিজেপি।

অডিওতে এক ব্যক্তিকে বলতে শোনা যাচ্ছে, অন্য কোনও দলকে একটাও ভোট দেওয়া যাবে না। যদি কেউ মনে করে কিছু ভোট হাতচিহ্নে দেব, কিছু ভোট বিজেপি-কে দেব। আর কিছু ভোট তৃণমূলে দেব। এসব করলে কিন্তু ভোটের পর চিহ্নিতকরণ করা হবে। ১০০ টি বুথের মধ্যে ৪০ টি বুথে আসবে প্যারা মিলিটারি। প্রত্যেকটা দলের লোক বুঝে গেছে যে প্রত্যেকটা বুথে কেন প্যারা মিলিটারি নেই। আমার হোদলপুরে একটাও প্যারা মিলিটারি থাকবে না। বাকি জায়গায় আমার কন্ট্রোল থাকবে। অফিসার যারা আসবেন, তাঁরা কিন্তু আমাদের কর্মচারী। কোথায় কোথায় কী করতে হবে তা চিহ্নিত করার কাজ শুরু করে দিয়েছি। ওই বুথগুলির জন্য আমরা লোকজন তৈরি করে রেখেছি। প্রিজ়াইডিং অফিসার যখন আসবেন, ৫-৬ জন তাঁকে সেটিং করবে। বুথে ঢুকে ছাপ্পা ভোট দিয়ে দেবেন। ভোট যেভাবেই হোক তৃণমূলে পড়তে হবে। এটাই আমাদের লক্ষ্য।”

বিজেপি-র অভিযোগ, কোচবিহারের ১ নম্বর ব্লকের তৃণমূল সভাপতি খোকন মিয়াঁ মঙ্গলবার রাতে কর্মিসভা করে এই নির্দেশ দিয়েছেন। গোটা বিষয়টি নিয়ে কমিশনে অভিযোগ জানাচ্ছে গেরুয়া শিবির।

বিজেপি-র কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা বলেন, “বিষয়টি শুনেছি। কমিশনে আমাদের যেতেই হবে। কোচবিহারে যে কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়া ভোট হতে পারে না, এটাই তার উল্লেখযোগ্য দৃষ্টান্ত। আমরা প্রতিটি কেন্দ্রেই কেন্দ্রীয় বাহিনী চাই। তৃণমূল পঞ্চায়েত নির্বাচন এভাবেই করেছে। এই নির্বাচনও ওই দিকেই যাচ্ছে।”

বিরোধীদের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে খোকন মিঞা বলেন, “এটা একটা ভিত্তিহীন অভিযোগ। বিজেপি হেরে যাবে বলে মিথ্যা কথা বলছে। মানুষ এই মিথ্যা কথাকে মেনে নেবে না।” অডিও ক্লিপের কণ্ঠস্বর তাঁর নয় বলেও দাবি করেন তিনি।

বিজেপির অভিযোগ পাওয়ার পরে এই অডিও নিয়ে নির্বাচন কমিশন কোন ব্যবস্থা গ্রহন করে কিনা এখন সেটাই দেখার।

এদিকে ভোটের কয়েক ঘণ্টা আগে এমন অডিও ক্লিপ ভাইরাল হওয়ায় অধিকাংশ মানুষের মনেই ঘুরেবেরাচ্ছে একটি প্রশ্ন, ভোটটা আদৌ ঠিকঠাক হবে তো?