কোচবিহারে ফের বিক্ষোভ ভোট কর্মীদের! রাজ্য পুলিশ দিয়ে ভোট করানো চলবে না। UBG NEWS

UBG NEWS, কোচবিহার : আর মাত্র ২৪ ঘণ্টার অপেক্ষা। বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের মহাযোঞ্জ শুরু হতে চলছে। চলছে চূড়ান্ত মুহূর্তের প্রস্তুতি। ভোটের উত্‍সবে প্রস্তুতি চললেও ফের নিরাপত্তার দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলেন ভোটকর্মীদের একাংশ। সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে আজও কোচবিহার ডিসিআরসির সামনে শিক্ষক বিদ্রোহ। পর্যন্ত নিরাপত্তা না পেলে ভোট করাতে নারাজ শিক্ষকদের একাংশ।

শিক্ষকদের একাংশের অভিযোগ, কমিশনের তরফে নিরাপত্তার আশ্বাস দেওয়া হলেও সব বুথে থাকছে না কেন্দ্রীয় বাহিনী। আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে দুই কেন্দ্রে বুথের সংখ্যা ৩৮৪৪টি। তার মধ্যে ৫০-৬০শতাংশ বুথ স্পর্শকাতর। প্রত্যেকটি স্পর্শকাতর বুথে থাকছে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলেও অধিকাংশ বুথে থাকছে রাজ্য পুলিশ।

শিক্ষকদের অভিযোগ, প্রথম দফায় কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে ভোটে মোট ৩৮৪৪টি বুথের মধ্যে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের মোট বুথ ২০১০। তার মধ্যে মাত্র ১০৬০টি বুথে থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। বাকি ৯৬০টি বুথে রাজ্য পুলিশের নিরাপত্তায় ভোট হবে। আর এতেই আপত্তি ভোটকর্মীদের একাংশ।

তাঁদের অভিযোগ, রাজ্য পুলিশ ভোট করালে তাঁরা শাসকদলের হয়ে কাজ করবে। এতে আশান্তি বেড়ে যাওয়ার সম্ভবনা তৈরি হতে পারে। কেননা, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনেও রাজ্য পুলিশকে দিয়ে ভোট করানোর মাসুল গুনতে হয়েছে তাঁদের। ভোটের কাজে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন শিক্ষত রাজকুমার রায়। পঞ্চায়েত নির্বাচনের মতো এবারের লোকসভা ভোটে হানাহানি রুখতে সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে বিক্ষোভ ভোটকর্মীদের।

প্রশাসন সূত্রে খবর, ভোটের কাজ বুঝে নিয়ে আজই ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে পৌঁঁছে যাওয়ার কথা ভোটকর্মীদের। কিন্তু, শিক্ষকদের দাবি, ভোটগ্রহণ কেন্দ্র পৌঁছানো থেকে শুরু করে বাড়ি ফেরা পর্যন্ত ভোটকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে কমিশনকে। এই কাজে রাজ্য পুলিশ চলবে না বলেও দাবি জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে, সোমবার কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, প্রথম দফা ভোটে কোচবিহারে মোতায়েন করা হবে ৪৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। মঙ্গলবার আরও ৩ কোম্পানি বাহিনী বাড়ানো হয়েছে। ভোটকর্মীদের প্রশ্ন উঠছে, মোট ৪৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোটে কোচবিহারে এলেও, অর্ধেক বুথে কেন মোতায়েন করা হচ্ছে? মূলত এই প্রশ্ন তুলে বিক্ষোভ দেখান ভোটকর্মীদের একাংশ।

জানা গিয়েছে, প্রথম দফায় দুটি আসনে ভোটগ্রহণে মোতায়েন করা হচ্ছে ৮৩ কোম্পানি আধা সেনা। ইতিমধ্যেই রাজ্যে এসেছে ৭৯ কোম্পানি বাহিনী। আজ আরও ৪ কোম্পানি বাহিনী আসছে। এর মধ্যে দুই কেন্দ্রের ৫০-৬০ শতাংশ বুথ থাকছে স্পর্শকাতর কেন্দ্রে। সেখানে মোতায়েন থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। থাকছে মোবাইল পেট্রোলিং ব্যবস্থাও। দায়িত্বে থাকছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর কাঁধে।